আজ- মঙ্গলবার, ২৬শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
বাংলার কথা
Header Banner

আড়ানী পৌর নির্বাচনে প্রার্থীদের মুখে উন্নয়ন প্রতিশ্রুতির ফুল ঝুড়ি

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

নিজস্ব প্রতিবেদক,বাঘা (রাজশাহী) o

আর মাত্র দু’দিন পর অনুষ্ঠিত হবে আড়ানী পৌর সভা নির্বাচন। জনগণের চাওয়া এবং পৌর সভার উন্নয়নে নানা আশ্বাস এবং প্রতিশ্রুতির মধ্য দিয়ে মেয়র ও কাউন্সিলার প্রার্থীরা নিজ নিজ প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করছেন। পাশা-পাশি সর্বস্তরের মানুষের দোয়া ও আশীর্বাদ নিচ্ছেন।

 

শেষ মুহূর্তে এসে পোস্টারে-পোস্টারে ছেঁয়ে গেছে পৌর এলাকার প্রতিটা পাড়া-মহল্লা ও রাস্তা ঘাট। ১৪ তারিখ রাত ১২ টার পর থেকে থেমে যাবে প্রচারণার কোলাহল। তার এর আগে যে যতোটা পারেন যোগাযোগ করে নিচ্ছেন ভোটারদের সাথে মত বিনিময়। এ দিক থেকে এবার প্রচারণায় আছেন বড় দুটি রাজনৈতিক দল থেকে দু’জন দলীয় মেয়র প্রার্থী যথাক্রমে আওয়ামী লীগ থেকে শহীদুজ্জামান শহীদ এবং বিএনপি থেকে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হক। এ ছাড়াও সরকারি দলের একজন বিদ্রোহী ও (স্বতন্ত্র) প্রার্থী হিসাবে মাঠে লড়ছেন এক টানা ২১ বছরের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ও বর্তমান মেয়র মুক্তার আলী।

 

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জনা গেছে, এখানে মেয়র পদে চারজান প্রার্থী মনোনয়ন জমা দেয়ার পর একজন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে নির্বাচন থেকে সরে দাড়িয়েছেন। তিনি হলেন তরুণ ছাত্রলীগ নেতা রিবন আহাম্মেদ বাপ্পী।এ দিক থেকে এখন মেয়র প্রদে প্রচারণায় রয়েছেন ৩ জন, কাইন্সিলর পদে ৩১ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১০জন।

 

স্থানীয় লোকজন জানান, নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে এসে মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীরা এলাকার নানা উন্নয়ন প্রতিশ্রুতি দেয়ার আশ্বাস ব্যক্ত করছেন। তবে একাধিক সূত্র বলেন, নির্বাচন থেকে বাপ্পী সরে দাড়ানোর পরে তার লোকজন বিদ্রোহী প্রার্থী মুক্তারের দিকে ঝুঁকেছেন। এতে করে দিন যত অতিবাহিত হচ্ছে মুক্তার আলীর জনসমর্থন ততটায় বাড়ছে।

 

মুক্তার আলী গত মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) এক পথ সভায় বলেন, ‘আমি রাজনীতি করি মানুষের কল্যাণের জন্য, মেয়র হতে চাই মানুষের সেবা করার জন্য। বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা তার পিতার আদর্শে অনুপ্রানিত একজন মানুষ এবং আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত এবং সুনাম ধন্য মানুষ। যদিও রাজনৈতিক ম্যার প্যেচে তিনি আমাকে মনোনয়ন দিতে পারেননি তথাপি কথা দিয়ে যচ্ছি, আমার কাছে প্রতীক কোন প্রতিদ্বন্দ্বী নয়, আমার কাছে এখন প্রতিদ্বন্দ্বী ব্যক্তি। আমি কথা দিয়ে যতদিন বেঁচে থাকবো আপনাদের খেমত করে যাবো এবং মরার আগের দিন পর্যন্ত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়েই বেঁচে থাকবো। ’

 

 

বাংলার কথা/নুরুজ্জামান/জানুয়ারি ১৩, ২০২১

এই রকম আরও খবর

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn