আজ- রবিবার, ২৪শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১১ই জমাদিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি
বাংলার কথা
Header Banner

ইরি-বোরো চাষে ব্যস্ত লালমনিরহাটের কৃষক

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

মাসুদ রানা রাশেদ, লালমনিরহাট o

 শীত আর ঘন কুয়াশাকে উপেক্ষা করে লালমনিরহাটের কৃষকেরা ইরি-বোরোর চাষাবাদ শুরু করেছে। জেলার ৫টি উপজেলার কৃষক ও কৃষাণীরা ব্যস্ত সময় পার করছে ইরি-বোরোর চারা রোপণে।

তবে কৃষক-কৃষাণীদের অভিযোগ, শীত আর ঘন কুয়াশার কারণে মাঠে কাজ করতে শ্রমিকরা বেশি টাকা চাচ্ছেন।

ইরি-বোরো মৌসুমের শুরুতেই বেড়ে যাচ্ছে ধান চাষের উৎপাদন খরচ। এখন খরচ বাড়লেও চাহিদা অনুযায়ী নেই কৃষকদের ধানের দাম। বছর বছর উৎপাদন খরচ বাড়লেও বাড়ে না উৎপাদিত ধানের দাম। উল্টো কমে যায় ধানের দাম। এ জন্য হতাশ কৃষক-কৃষাণীরা। লালমনিরহাট জেলার প্রধান অর্থকরী ফসল হচ্ছে ধান।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এই জেলায় এ বছর প্রায় ৮০ হাজার হেক্টর জমিতে ইরি-বোরো ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে গত মৌসুমের চেয়ে বেশি চাষাবাদ হবে, ফলনও বেশি হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছেন কৃষি কর্মকর্তারা।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, লালমনিরহাট সদর, আদিতমারী, কালীগঞ্জ, হাতীবান্ধা ও পাটগ্রাম উপজেলায় ইরি-বোরোর চাষে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা। কেউ জমি চাষ দিয়ে প্রস্তুত করছে, কেউ বীজ তুলছে, আবার কেউ চারা লাগাচ্ছে।

কৃষকেরা জানান, জমি চাষ, সার, কীটনাশক, শ্রমিকদের মজুরি ও সেচের পানিসহ সব কিছুর দাম বেড়েছে। উৎপাদন খরচ অনুয়ায়ী ধানের দাম কম। জীবন বাঁচার তাগিদে শীত ও সব খরচকে উপেক্ষা করে ইরি-বোরো ধানের চাষ করছেন তারা।

বাংলার কথা/জানুয়ারি ১১, ২০২১

এই রকম আরও খবর

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn