সেই ছকিরন নেছাকে পাকা বাড়ি নির্মান করে দিবেন এমপি পুত্র সোহাগ

লালমনিরহাট প্রতিনিধি o

অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘বাংলার কথা’সহ  বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও দৈনিক জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ দেখে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ভাতা না পাওয়া ষাটোর্ধ্ব বৃদ্ধা অসহায় ছকিরন নেছাকে ৩ লক্ষ টাকা দিয়ে পাকা বাড়ি নির্মান করে দিবেন এমপি পুত্র মাহমুদুল হাসান সোহাগ।শনিবার (১০ অক্টোবর) সকালে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান সোহাগ মোবাইল ফোনে কল করে এই প্রতিবেদককে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

লালমনিরহাট-১ আসনের এমপি মোতাহার হোসেনের পুত্র মাহমুদুল হাসান সোহাগ। এছাড়া তিনি হাতীবান্ধা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।
ছকিরন নেছা উপজেলার ডাউয়াবাড়ী ইউনিয়নের প্রান নাথ পাটিকা পাড়ার ৯ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা।
জানা গেছে, প্রায় ১৫ বছর আগে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান ছকিরন নেছার স্বামী। তখন থেকে ভ্যান চালক ছেলের ৫ সদস্যের সংসারে দু এক বেলা খেয়ে না খেয়ে দিনাপাত করেন। স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে অসহায় ওই বৃদ্ধা চেয়ারম্যান ও মেম্বরদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোন ভাতা পাননি। এমনকি ২০০০ হাজার টাকা দিতে না পারায় বিধবা ও বয়স্ক ভাতার তালিকা থেকে নাম কেটে দেয় সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য আলম বলে অভিযোগ তুলেন তিনি। সেই প্রেক্ষিতে এই প্রতিবেদক সরেজমিনে ছকিরন নেছার বাড়ি গিয়ে তথ্য সংগ্রহ করে। পরে ১০ অক্টোবর ‘হাতীবান্ধায় টাকার জন্য বিধবা ভাতা পেলেন না ছকিরন নেছা’ এই শিরোনামে অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘বাংলার কথা’ সহ বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও দৈনিক জাতীয় পত্রিকায়  সংবাদ প্রকাশিত হয়। সেই সংবাদ দেখে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান সোহাগ এই প্রতিবেদককে ফোন করে ছকিরন নেছাকে তিন লক্ষ টাকা দিয়ে পাকা ঘর নির্মান করে দেয়ার কথা বলেন।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান সোহাগ বলেন, ‘এই বিষয় গুলো আমাদের অগচরে থাকলে ভুক্তভোগিদের পাশে দাঁড়ানো সম্ভব হয় না। যখন এই সব অসংগতি গুলো সাংবাদিকরা পত্রিকায় তুলে ধরেন। তখন আমাদের দৃষ্টি গোচড় হয়। তাই আমি হাতীবান্ধা-পাটগ্রাম আসনের এমপি মোতাহার হোসেনের পুত্র হয়ে ওই বৃদ্ধা মায়ের পাশে দাড়াই। ওই বৃদ্ধা মাকে তিন লক্ষ টাকা দিয়ে পাকা বাড়ি নির্মান করে দেয়া হবে। এছাড়া তিনি যতদিন বেচে থাকবেন ততদিন ওনার দেখাশুনা আমি করবো।’

বাংলার কথা/রবিউল ইসলাম রবি/অক্টোবর ১০, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: