সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনকে ওসির হুমকি

নিজস্ব প্রতিবেদক ০
রাজশাহীতে কর্মরত এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনকে বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মন প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রোববার (১৮ অক্টোবর) সাংবাদিক ছোটন রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন।

পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক বিষয়টি গুরুত্বসহকারে তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটন বলেন, প্রায় ৩৫ বছর ধরে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সুনামের সাথে তিনি সাংবাদিকতা করে আসছেন। সম্প্রতি বোয়ালিয়া মডেল থানায় ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মনের নেতৃত্বে স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। স্বর্ণের বার উদ্ধারের ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। এসব খবরে উদ্ধার করা স্বর্ণের বারের সংখ্যা নিয়ে পুলিশের তথ্যের গরমিল রয়েছে বলে তথ্য প্রকাশ করা হয়। ছোটন বলেন, এসব খবরের বিষয়ে তার ইন্ধন রয়েছে বলে ধারণা করে বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ তাকে নিয়ে বিভিন্নজনের কাছে আজেবাজে মন্তব্য করে আসছিলেন।

সাংবাদিক ছোটন বলেন, প্রথমে তিনি বিষয়টি গুরুত্ব না দিলেও রাজশাহীর এক বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পীর সামনে গত ১৫ অক্টোবর রাতে তাকে নিয়ে ওসি নিবারন আজেবাজে কথা বলেছেন।

পুলিশ কমিশনার বরাবর করা লিখিত অভিযোগে সাংবাদিক ছোটন উল্লেখ করেছেন, রাজশাহীর ওই সঙ্গীত শিল্পীর সামনে আমাকে হত্যা করা হবে বলে ওসি হুমকি দিয়েছেন। একই সঙ্গে অন্যান্য সাংবাদিকদেরও হত্যা করার হুমকি দিয়েছেন। প্রয়োজনে ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মণ চাকরি ছেড়ে দেয়ার কথাও বলেছেন।

ওসি যে সঙ্গীত শিল্পীর সামনে সাংবাদিক ছোটনকে হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শুধু সাংবাদিক ছোটনই নয়, অন্যান্য সাংবাদিকদের সম্পর্কেও ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মন খারাপ মন্তব্য করছিলেন। তিনি সাংবাদিক ছোটনকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন, এটা সত্য। সম্প্রতি ওসিকে নিয়ে গণমাধ্যমে নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় তিনি অন্যান্য সাংবাদিকদেরও দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন। ওই শিল্পী বলেন, তিনি ছাড়াও আরও কয়েকজন ওসির এমন কথাবার্তা শুনেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে রোববার বিকালে বোয়ালিয়া মডেল থানার ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মন বলেন, গতকাল (শনিবার) সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনের সঙ্গে দেখা হয়েছে। আজও দেখা হয়েছে। কথা হয়েছে। তার সঙ্গে তো কোনরকম সমস্যা নেই। তিনি পুলিশ কমিশনারের কাছে অভিযোগ করেছেন কীনা, তা জানি না। তবে সাংবাদিক ছোটন যদি এ ধরনের অভিযোগ করে থাকেন, তবে তা মিথ্যা। এর কোন ভিত্তি নেই।

বাংলার কথা/অক্টোবর ১৮, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: