শ্রাবন্তীকে ছাড়তে নারাজ, ফিরে পেতে আদালতে তৃতীয় স্বামী

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

নিউজ ডেস্ক : স্ত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়কে ছাড়তে নারাজ। ভাঙা সংসার জোড়া লাগাতে মরিয়া রোশন সিং। তিক্ততা ভুলে ফের অভিনেত্রীর সাথে সংসার পাততে চান তিনি। আর এ আবেদন জানিয়েই সোমবার ‘রেস্টিটিউশন অব কনজুগাল রাইটস’-এর ভিত্তিতে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন শ্রাবন্তীর তৃতীয় স্বামী রোশন সিং।

 

টলিউডে ত্রিকোণ প্রেমের কাহিনী নিয়ে সরগরম সোশ্যাল মিডিয়া। একদিকে যশ-নুসরাত-নিখিল, তো অন্যদিকে শ্রাবন্তী-রোশন তরজা! নিখিল-নুসরাতের মামলার শুনানি যখন আগামী জুলাই মাসে, তখন সদ্য শ্রাবন্তী-রোশনের বিচ্ছেদ মামলার শুনানির খবর প্রকাশ্যে এল। আর সেই প্রেক্ষিতেই টলিপাড়ার মিষ্টি নায়িকা শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে।

গত নভেম্বর মাস থেকেই আলাদা থাকছেন তারা। কথাবার্তা, মুখ দেখাদেখি একেবারে বন্ধ। এর মাঝেই শোনা যায়, শ্রাবন্তী নাকি নতুন করে এক ব্যবসায়ীর প্রেমে পড়েছেন। কিন্তু আদালতে গিয়ে অন্য সুর স্বামী রোশন সিংয়ের মুখে। বিয়ে ভাঙার গুঞ্জনের মধ্যেই শোনা গেল, শ্রাবন্তীর সাথে সংসার ভাঙতে নারাজ রোশন। তিনি নাকি ফের অভিনেত্রীর সাথে সংসার পাততে চান। এমনকী, এই আবেদন নিয়ে আদালতেরও দ্বারস্থ হয়েছেন রোশন।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের এপ্রিল মাসে চণ্ডীগড়ে গিয়ে রোশনের সাথে গাঁটছড়া বেঁধেছিলেন শ্রাবন্তী। কিন্তু বছর গড়াতে না গড়াতেই ফের অভিনেত্রীর সাংসারিক জীবনে সমস্যার সূত্রপাত। তিক্ততা গড়িয়ে এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে দু’জনে আলাদা থাকতে শুরু করেন।

এর মাঝেই কানাঘুষো শোনা যায়, অভিনেত্রী ফের প্রেমে পরেছেন। এবার তার মাসখানেকের মধ্যেই শ্রাবন্তীর সাথে ভাঙা সংসার জোড়া লাগাতে আদালতের দ্বারস্থ হন রোশন।

 

রোশনের কথায়, শ্রাবন্তীর নতুন সম্পর্কের কথা তিনি সংবাদমাধ্যম মারফৎই জানতে পেরেছেন। তবে রোশনের নাকি এতে কোনো আপত্তি নেই। রোশন জানিয়েছেন, তিনি মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে। ঘর-সংসার করতে চান। আর সংসার করতে চেয়েই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।

কিন্তু শ্রাবন্তী, তিনি কী চাইছেন, আর তার নয়া প্রেমেরই বা কী হবে? অভিনেত্রীর ঘনিষ্ঠমহল সূত্রে খবর, তিনি নাকি আইনি বিচ্ছেদের পথেই হাঁটতে চান।সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

বাংলার কথা/৯জুন, ২০২১

এই রকম আরও খবর

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn