লালমনিরহাটে তীব্র হচ্ছে রত্নাই নদীর ভাঙ্গন


মোঃ মাসুদ রানা রাশেদ, লালমনিরহাট ০
লালমনিরহাট জেলার লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের শিবেরকুটি গ্রাম দিয়ে প্রবাহিত রত্নাই নদীর তীব্র ভাঙ্গনে এক হাজার মিটার নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। এছাড়াও নদী ভাঙ্গণে ফসলি জমি, আধাপাকা ঘর-বাড়ি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে।

রত্নাই নদীর ভাঙ্গন তীব্র আকার ধারণ করলেও সরকারি বা বেসরকারি উদ্যোগে ভাঙ্গন প্রতিরোধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। গত সেপ্টেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে রত্নাই নদীর ভাঙ্গনের ফলে হুমকির মুখে পড়েছে কুলাঘাট ইউনিয়নের শিবেরকুটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শিবেরকুটি কমিউনিটি ক্লিনিক, শিবেরকুটি জামে মসজিদ ও মাদ্রাসা, শিবেরকুটি নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়। ভাঙ্গন প্রতিরোধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় ভাঙ্গন আতঙ্কে রয়েছে এলাকার শত-শত মানুষ।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, কুলাঘাট ইউনিয়নের শিবেরকুটি গ্রামের আলহাজ্ব রমজান আলী মাস্টারের বাড়ির পয়েন্টে রত্নাই নদীর পাড়ের এক হাজার মিটার ভেঙ্গে গেছে। এর আগে শিবেরকুটি এলাকার দু’টি বাড়ি ঘর গাছপালাসহ ধ্বংস হয়ে গেছে কয়েক একর জমি।

শিবেরকুটি গ্রামের বাসিন্দা রেজাউল করিম জানান, রত্নাই নদীর ভাঙ্গনে তাদের ভিটে-মাটি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। বর্তমানে তারা ঘর-বাড়ি সরিয়ে অন্য জায়গায় সরিয়ে নিচ্ছে। অনেকেই ভিটে-মাটি হারিয়ে অন্য জায়গায় জমি নিয়ে বাড়ি করেছেন।

ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা প্রশাসন এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কোন প্রতিনিধি ভাঙ্গন এলাকাটি পরিদর্শন করতে এখন পর্যন্ত যায়নি বলে জানা গেছে।

গ্রামের ঐতিহ্যবাহী আলহাজ্ব রমজান আলী মাস্টারের বাড়ি আজ বিলীনের পথে।

উল্লেখ্য, রত্নাই নদীটি পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত হয়ে লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের দীঘলটারি গ্রামের পশ্চিম দিক দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে দক্ষিণে ভেলাবাড়ী হয়ে দক্ষিণ-পূর্বমুখী হয়ে মোগলহাট-কুলাঘাট ইউনিয়নের চর কুলাঘাট মৌজার পূর্বে ধরলা নদীর সাথে মিলিত হয়েছে।

বাংলার কথা/অক্টোবর ১৬, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: