রবিবার , ২৭ নভেম্বর ২০২২ | ২২শে মাঘ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

ভৈরবে জুতার মার্কেটে আগুন, ৩ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
নভেম্বর ২৭, ২০২২ ৪:৩৭ অপরাহ্ণ

নিউজ ডেস্ক :
কিশোরগঞ্জের ভৈরবে একটি জুতার মার্কেটে লাগা আগুন তিন ঘণ্টার চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে ফায়ার সার্ভিস। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে ফায়ার সার্ভিসের ৫টি ইউনিট। আগুনে অনেক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি দোকান মালিক সমিতির। আগুন লাগার কারণ অনুসন্ধানের জন্য চার সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন জেলা প্রশাসক।

রবিবার বিকাল ৪টার দিকে উপজেলা পরিষদের সামনে মার্কেটের তৃতীয় তলায় আগুন লাগে।

মার্কেটের পাদুকা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. আল আমিন জানান, এই মার্কেটে শতাধিক জুতার গুদাম রয়েছে। সেসব গুদামে জুতা এবং জুতা তৈরির অনেক সরঞ্জাম ছিল। আগুনে দোকানীদের মালামাল পুড়ে গেছে বলে দাবি করেন তিনি।
কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মোবারক আলী জানান, মার্কেটের তৃতীয় তলায় জুতা ও প্লাস্টিকের দোকান রয়েছে। সেখানেই বিদ্যিতের শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে ফায়ার সার্ভিসের এই কর্মকর্তা জানান।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে তিনি আরও জানান, প্রতি রবিবার ভৈরব পৌর এলাকার মার্কেট সাপ্তাহিক বন্ধের দিন। বিকাল ৪টার দিকে উপজেলা পরিষদের বিপরিত পাশে মার্কেটের তৃতীয় তলায় ধোঁয়া দেখতে পান স্থানীয়রা। সাথে সাথেই দাউ দাউ করে আগুন জ্বলতে দেখেন তারা৷ আগুন ছড়িয়ে পড়ে তৃতীয় তলার সব দোকানেই। খবর পেয়ে ভৈরব বাজার ফায়ার সার্ভিস, বন্দর ফায়ার সার্ভিস, কুলিয়ারচর ফায়ার সার্ভিস ও পার্শ্ববর্তী ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার আশুগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসসহ মোট ৫টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।

সন্ধ্যা ৭ টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। মার্কেটের শতাধিক দোকান পুড়ে গিয়ে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দাবি মার্কেটের পাদুকা দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. আল আমিনের।

ফায়ার সার্ভিসের উপ সহকারী পরিচালক মোবারক আলী জানান, ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে এখনই কিছু বলা যাবে না।

আগুন লাগার খবর পেয়ে কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামীম আলম ঘটনাস্থলে যান। তিনি জানান, আগুন লাগার কারণ অনুসন্ধানের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাদেকুর রহমান সবুজকে প্রধান করে চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর তিনজন হলেন ভৈরব থানার ওসি, ফায়ার সার্ভিসের একজন কর্মকর্তা ও বিদ্যুৎ বিভাগের একজন কর্মকর্তা। আগামী তিন দিনের মধ্যে এ কমিটি রিপোর্ট প্রদান করবে বলে জানান তিনি।

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ