আজ- শনিবার, ১৫ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি
বাংলার কথা
Header Banner

বুড়িমারী স্থলবন্দর হয়ে দেশে ফিরলো ১২ বাংলাদেশী

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp
লালমনিরহাট প্রতিনিধি ০
লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে আটকে পড়া শিক্ষার্থীসহ ১২ জন বাংলাদেশী পাসপোর্টধারী যাত্রী দেশে ফিরেছেন। কলকাতার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন থেকে অনুমতিপত্র নিয়ে বুড়িমারী চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন দিয়ে তারা দেশে ফেরেন।
শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) দুপুর ১২টায় ভারতে আটকে পড়া শিক্ষার্থীসহ ১২ জন বাংলাদেশীকে বুড়িমারীতে বিশেষ ব্যবস্থায়  কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে বলে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বুড়িমারী ইমিগ্রেশনের ইনচার্জ আনোয়ার হোসন।
বুড়িমারী ইমিগ্রেশন সূত্রে জানা যায়, বুড়িমারী স্থলবন্দর দিয়ে গত তিনদিনে বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যা পর্যন্ত দুই দেশের ১৬ জন যাত্রী পারাপার হয়েছেন। এদের মধ্যে চার ভারতীয় নাগরিক অনুমতি নিয়ে ভারতে প্রবেশ করেন। বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসার জন্য ভারতের আটকে পড়া ১২ বাংলাদেশী নাগরিকরা বুড়িমারী চেকপোস্ট দিয়ে দেশে প্রবেশ করেন।
এদের মধ্যে দার্জিলিং থেকে আসা ঢাকার ছয় শিক্ষার্থী ও চট্টগ্রামের তিনজন এবং রংপুরের হারাগাছ এলাকার তিন জন রয়েছেন। তাদেরকে পাটগ্রাম উপজেলা প্রসাশন বুড়িমারী স্থলবন্দরের আবাসিক হোটেল সামটাইম প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।
বুড়িমারীতে আটকে পড়া যাত্রী জাহিদুল ইসলাম বলেন, ভারতে চিকিৎসার জন্য গিয়ে সেখানে করোনা ভাইরাস বৃদ্ধি পাওয়ায় চিকিৎসা না নিয়ে ফেরত এসেছি। কিন্তু বুড়িমারীতে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ১৪ দিন আমার তিনজনের পক্ষে থাকা সম্ভব না। হাতে টাকা পয়সাও নেই। কিভাবে ১৪ দিন থাকব? আমাদের হোম কোয়ারেন্টিনে দেওয়ার অনুরোধ করছি।
বুড়িমারী ইমিগ্রেশনের ইনচার্জ আনোয়ার হোসন বলেন, যারা ভারতে চিকিৎসার জন্য গিয়ে আটকে পড়েছে, শুধু তারাই কলকাতার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন থেকে অনুমতি নিয়ে দেশে ফিরছেন। এছাড়া যে সব পাসপোর্টধারী যাত্রী দেশে ফিরছেন, তাদের বাধ্যতামূলক বুড়িমারীর কয়েকটি আবাসিক হোটেলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে বলে তিনি জানান।
বুড়িমারী স্থল বন্দরের স্বাস্থ্য উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার রাসেল আহম্মেদ জানান, ভারত থেকে আসা বাংলাদেশেী যাত্রীদের করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট ও শরীরের তাপমাত্রা, ঠান্ডা, কাশি ও এলার্জিজনিত বিষয়গুলো আছে কিনা, তা যাচাই করতে তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে।
বাংলার কথা/সিদরাতুল মোত্তাকিন/এপ্রিল ৩০, ২০২১

এই রকম আরও খবর

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn