বাঘায় মাইকে পণ্য ও প্রতিষ্ঠানের প্রচারে অতিষ্ঠ মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক (বাঘা) o

রাজশাহীর বাঘায় হরেক রকম পণ্য ও বিপণিবিতান-সহ ল্যাবকেয়ার এবং ক্লিনিকে অভিজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা রোগী দেখার প্রচার মাইকের শব্দ দূষণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। প্রতিনিয়ত মাইকের ব্যবহারে ঐতিহ্যবাহী মাজার শরিফ ও প্রাচীনতম মসজিদে আসা দর্শনার্থী-সহ খোদ এলাকাবাসিরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। এ নিয়ে সম্প্রতি উপজেলা আইনশৃঙ্খলা মিটিংএ কথা উঠেছে। তবে অদ্যাবধি নেয়া হয়নি কার্যকারি কোন ব্যবস্থা ।

স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, প্রতি রবি ও বৃহস্পতিবার বাঘা উপজেলা সদরে হাট বসে। এই দু’দিন ভ্যান যোগে কম করে হলেও ৭ থেকে ৮ টি প্রচার মাইক বের হয়। এ ছাড়াও সপ্তাহের প্রায় দিনই চলে নানা বিষয় নিয়ে প্রচারণা। এসব প্রচারনায় পূর্ব থেকে কথা রেকডিং করে সেই রেকড বাজানো হয়। এদের মধ্যে মঞ্জু ডায়াগোনিষ্ট সেন্টারে অভিজ্ঞ ডাক্তার দ্বারা রোগী দেখার প্রচার, পিওর ল্যাবে সব ধরনের পরীক্ষা, তোষার হমিও হলে সু-চিকিৎসা,ওয়ালটন ও সিঙ্গার প্লাজায় ধামাকা অফার বিশেষ ভাবে উল্লেখ যোগ্য।

অপর দিকে মুরগি এবং গরু মহিষের মাংস ক্রেতা ভাইদের জন্য প্রায় দিনই থাকে সুখবর। এ ছাড়াও রয়েছে হরেক রকম খেলা এবং নির্দিষ্ট দোকানে হালখাতার মাইকিং। ইউনিয়ন ও পৌরসভা থেকে মাঝে মধ্যে উন্মুক্ত ইজারা-মাইকিং। নতুন-নতুন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামে প্রচারনা, অসুস্থ রুগীর জন্য এগিয়ে আসা, ৫০ টাকায় এলিডি লাইড, এমনকি কারো ছাগল হারিয়ে গেলে সেটি নিয়েও করা হচ্ছে মাইকিং। আর জমাদিতে পারলে তার জন্য থাকছে পুরুস্কার।

সম্প্রতি উপজেলা আইন শৃঙ্খলা সভায় একজন কলেজ শিক্ষক বলেন, রাজশাহীর যেকটি উপজেলা রয়েছে তার মধ্যে বাঘায় সবচেয়ে বেশি মাইক এর দোকান রয়েছে। বর্তমানে পাশ্ববর্তী লালপুর,পুঠিয়া, চারঘাট এমনকি পাবনার ঈশ্বরদী থেকেও এখানে মাইক ভাড়া করতে আসে লোকজন।

বাঘার আমোদপুর গ্রামের বাসিন্দা মাজদার রহমান ও বারখাদিয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক সহ অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, আমরা এখন মাইকের শব্দে অতিষ্ঠ। নানা প্রচারণার নামে দিনভর মাইকে শব্দদূষণ আমাদের জীবনকে দুর্বিসহ করে তুলেছে। বিশেষ করে করোনা সংকটে শিক্ষার্থীরা যে বাড়িতে বসে পড়াশোনা করবে তার উপায় নেই।

বাঘা পৌর এলাকার বিশিষ্ট সমাজ সেবক খন্দকার মনোয়ারুল ইসলাম মামুন বলেন , অত্র এলাকায় বর্তমানে যেভাবে মাইকে প্রচারণা চালানো হচ্ছে এটা রীতিমতো বে-আইনি কাজ। তার মতে, অত্র এলাকায় অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে একমাত্র মৃত মানুষের জানাজা এবং সরকারি কাজে প্রচার-প্রচারনা ছাড়া সব ধরণের প্রচার মাইক নিষিদ্ধ করা উচিত।
বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা বলেন, মাসিক সভায় এ বিষয়ে কথা উঠার পরে মাইকের দোকানদার সহ যারা প্রতিনিয়ত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রচার-প্রসারের জন্য সস্তায় মাইকের ব্যবহার করে, তাদেরকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

বাংলার কথা/নুরুজ্জামান/ অক্টোবর ০৪, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: