বাগমারায় প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বাদিকে হুমকির অভিযোগ


নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগমারা (রাজশাহী) ০
রাজশাহীর বাগমারায় উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে লাইভস্টক সার্ভিস (এলএসপি) পদে নির্বাচনের ক্ষমতার অপব্যবহার ও জালিয়াতির অভিযোগ করায় বাদিকে শুনানিতে আসতে নিষেধ ও ভিন্ন মামলা দিয়ে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই অভিযোগকারী ও তার পরিবার নিরাপত্তায় ভুগছেন।

জানা গেছে, উপজেলা প্রাণীসম্পদ বিভাগে লাইভস্টক সার্ভিস (এলএসপি) পদে উপজেলার স্ব-স্ব ইউনিয়ন পর্যায়ে একজন করে লোক নিয়োগের জন্য ২০১৯ সালের ১ আগষ্ট প্রার্থীদের লিখিত ও পরের দিন মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষার একদিন পরে ফলাফল ঘোষণায় গোবিন্দপাড়া ইউনিয়নের শালজোড় গ্রামের মোঃ মকছেদ আলীর ছেলে মোঃ মুর্তোজা খান মেধায় ২য় স্থানে থাকেন। পরবর্তিতে ১ম স্থান অধিকারী হিসাবে লালপুর গ্রামের মৃত মুনছুর রহমানের ছেলে নুরুজ্জামানের নাম প্রকাশ করা হয়। তিনি নিজেকে বোয়ালিয়া গ্রামের বাসিন্দা বানিয়ে ভুয়া জন্ম সনদের মাধ্যমে ওই পদে নিয়োগ নেন।

অথচ নিয়োগের প্রথম শর্ত ছিলো সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে। নিয়োগ প্রক্রিয়ায় জালিয়াতির ঘটনা তদন্ত ও ব্যবস্থা গ্রহণে বাগমারা ২য় স্থান অধিকারী মোঃ মুর্তোজা খান সম্প্রতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরিফ আহম্মেদ এর কাছে ঘটনার প্রমাণসহ উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে লাইভস্টক সার্ভিস (এলএসপি) পদে নির্বাচনের ক্ষমতার অপব্যবহার ও জালিয়াতির অভিযোগ করেন।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত কর্মকর্তা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা আতিকুর রহমান মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে অভিযোগকারী মুর্তোজা খানকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরের শুনানিতে আসতে নিষেধ করার পাশাপাশি ভিন্ন মামলা দিয়ে পুলিশে ধরিয়ে দেয়ার হুমকি প্রদান করেছেন বলে দাবি করেন অভিযোগকারী মুর্তোজা খান।

গোবিন্দপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিজন সরকার বলেন, নুরুজ্জামান পিতা মুনছুর রহমান এই নামের কোন লোক গোবিন্দপাড়া ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামে নেই। এছাড়া ওই পরিচয়ে কোন লোকের নামে জন্ম সনদ কিংবা জাতীয় পরিচয়পত্র ইস্যু করা হয়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আতিকুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি কোন হুমকি বা ভয়ভীতি দেখাইনি। এ বিষয়ে যাবতীয় তদন্ত করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ব্যবস্থা নিবেন।

বাংলার কথা/মাহফুজুর রহমান প্রিন্স/অক্টোবর ১৩, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: