সোমবার , ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | ১৭ই মাঘ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

বরগুনায় বাস ধর্মঘট, ভোগান্তিতে সাধারণ যাত্রীরা

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২২ ৩:০৯ অপরাহ্ণ

বরগুনায় বাস ধর্মঘট, বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়কে ঢাকা-বরগুনা রুটে বাস চলাচল করতে না দেওয়ায় জেলায় ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন পরিবহন বাস মালিকরা

 

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে ঢাকাসহ দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস ছেড়ে যায়নি কোনো।প্রতিদিন ঢাকা-বরগুনা রুটে শতাধিক যাত্রীবাহী বাস চলাচল করে। এখনও বরগুনায় ঢুকতে দিচ্ছে না ঢাকার কোনো বাস। মাসব্যাপী চলতে থাকা রূপাতলী-বাকেরগঞ্জ বাসমালিক সমিতির স্বেচ্ছাচারিতায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন বরগুনার যাত্রীরা।সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ভোর ৬টা থেকে এ ধর্মঘট শুরু হয়। দূরপাল্লার পরিবহন পরিচালক কমিটির পক্ষ থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। বাস চলাচল নির্বিঘ্নে না করা পর্যন্ত এ ধর্মঘট অব্যহত থাকবে বলেও জানিয়েছেন তারা।

 

এদিকে ধর্মঘটে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন শিক্ষার্থী ও চাকরিজীবীসহ সাধারণ যাত্রীরা। অনেকেই পায়ে হেঁটে গন্তব্যের উদ্দ্যেশে যেতে দেখা গেছে। এছাড়া শহরের ভেতরে চলাচলরক সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও রিকশায় ভাড়া চাওয়া হচ্ছে কয়েক গুণ বেশি।

 

বরগুনা দূরপাল্লার পরিবহন পরিচালক কমিটির যুগ্ন আহবায়ক একে আজাদ বাবলু বলেন, বরগুনা-বাকেরগঞ্জ সড়ক দিয়ে ঢাকা-বরগুনা রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে বরিশালের রুপাতলী বাস মালিক সমিতির মালিক ও শ্রমিকরা। এতে ঢাকা থেকে বরগুনা পৌঁছাতে সময় লাগছে ১০ ঘণ্টা। ফলে দুর্ভোগ পোহাচ্ছে যাত্রীরা। পাশাপাশি পদ্মা সেতুর সুফল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এ রুটের যাত্রীরা। যাত্রী ভোগান্তি ও বরিশাল বাস মালিক সমিতিরি স্বেচ্ছাচারিতার কারণে আমরা অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছি। দাবি পূরণ হলেই ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হবে বলেও জানান পরিবহন পরিচালক সমিতির এই নেতা।

বাস শ্রমিক হানিফা ও ফোরকান বলেন, বরিশাল আটকে রেখে আমাদের উপর অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা আমাদের বাস থামিয়ে রাখা হয়। চাঁদা দিয়ে তারপর আমাদের আসতে হয়। একটি স্বাধীন দেশে এরকম ঘটনা আমাদের জন্য লজ্জার।

 

বরগুনা জেলা পরিবহন পরিচালনা কমিটির সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান টুকু বলেন, ‘আমরা অনেকদিন অপেক্ষা করেছি যাতে প্রশাসন বিষয়টি সমাধান করেন। রাজনৈতিক নেতা, জনপ্রতিনিধি, পুলিশ প্রশাসন, জেলা প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরেছি। কিন্তু তারা কেউ বিষয়টিকে সমাধান করে দেননি। তাই বাধ্য হয়ে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু করেছি আমরা। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে।

 

এবিষয়ে বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, ‘যারা আজ বরগুনাতে পরিবহন ধর্মঘট ডেকেছেন তারা এ বিষয়ে আমাকে কিছুই জানান নাই। যদি জানাতেন তাইলে আমি এ বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করতাম।

 

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ