‘ফ্রি ফায়ার’ আসক্তিতে প্রাণ গেল এইচএসসি পরীক্ষার্থীর

নাটোর প্রতিনিধি o

নাটোরের লালপুরে মোবাইল গেমস ‘ফ্রি ফায়ার’ আসক্তিতে প্রাণ গেল ফারুক হোসেন (১৮) নামে এক এইচএসসি পরিক্ষার্থীর। বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টায় দিকে উপজেলার বাওড়া-বৃষ্টপুর সংযোগে ঈশ্বরদী গামী মালগাড়ি ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু হয় তার। নিহত ফারুক উপজেলার বাওড়া গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে এবং গোপালপুর বিজনেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট কলেজের ছাত্র।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার গোপালপুর রেলগেটের রাস্তায় ওপর মাথাবিহীন টুকরো টুকরো একটি লাশ পাওয়া যায়। পরে ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। পরে প্রায় এক কিলোমিটার দুর থেকে লাশটির মাথা ও একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে লাশটি শনাক্ত করা হয়।

স্থানীয়রা আরও জানায়, বাওড়া- বৃষ্টপুর সংযোগটি স্থানীয় তরুণদের ‘ফ্রি ফায়ার জোন’। বিকাল থেকে লাইনের ওপর সারি সারি করে বসে মোবাইল গেমস পাবজি, ফ্রি ফায়ারে মেতে উঠে স্থানীয় তরুণরা। এর আগে রেললাইনে বসে আড্ডা দিতে নিষেধ করেও কাজ হয়নি। যার জন্য অকালে ঝরে গেল একটি প্রাণ।

নিহতের বাবা বাচ্চু মিয়া জানান, বাড়ির পাশে রেললাইন হওয়ায় লাইনের ওপর বসে তার ছেলেসহচার বন্ধু মিলে ফ্রি ফায়ার গেমস খেলছিল। পরে রাত হওয়ায় বন্ধুরা চলে গেলেও তার ছেলে ফারুকের বাড়ি সেখানে হওয়ায় স্থানটিতে বসে গেমস খেলছিল। পরে রাতে ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশের মাধ্যমে তার ছেলের মৃত্যুর খবর জানতে পারেন।

এ বিষয়ে লালপুর থানার ওসি সেলিম রেজা ট্রেনে কাটা পড়ে একজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, যেহেতু ট্রেনে কেটে মৃত্যু তাই এ বিষয়ে ঈশ্বরদী রেলওয়ে পুলিশ ব্যবস্থা নিবে।

বাংলার কথা/ নাজমুল হাসান/ সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: