আজ- সোমবার, ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রজব, ১৪৪২ হিজরি
বাংলার কথা
Header Banner

পাবনা-৪ উপনির্বাচন: নৌকা ও ধানের শীষের চলছে ভিন্নধর্মী প্রচারণা

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp


শেখ মেহেদী হাসান, ঈশ্বরদী (পাবনা) o
পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনে উপনির্বাচনে নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীকের চলছে ভিন্নধর্মী প্রচারণা। তবে দেখা মেলেনি লাঙ্গল প্রতীকের পোস্টার। কিংবা দেখা মেলেনি প্রার্থীর।
প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই ঈশ্বরদী-আটঘরিয়ার প্রতিটি ইউনিয়নে পৌছে গেছে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাসের ছবিসহ সাদা কালো পোস্টার। রাস্তায় রাস্তায় দড়িতে ঝোলানো পোস্টার শোভা পাচ্ছে। ইউনিয়নগুলোতে করা হয়েছে নির্বাচনী অফিস। সেই অফিসের মাধ্যমে ভোট প্রার্থনা করে প্রার্থীর পক্ষ থেকে প্রচারণা ও গণসংযোগ করছেন আওয়ামী লীগ ও তাদের সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী। বের হয়েছে বের কয়েকটি প্রচার মাইক। প্রতিদিনই দল থেকে বের করা হচ্ছে মোটর সাইকেল শোভা যাত্রা। স্বতঃফূর্তভাবে নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিদিনই নিয়মিত বসছেন নির্বাচনী অফিসে। প্রার্থীর পক্ষে মোড়ে মোড়ে ভোটারদের মাঝে লিপলেট বিতরণের মাধ্যমে প্রার্থনা করছেন ভোট। এই দিক থেকে প্রচারণার  শীর্ষ অবস্থানে রয়েছেন নৌকার প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস।
অন্যদিকে বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে হাবিবুর রহমান হাবিব শুরু করেছেন গণ সংযোগ। তবে ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া উপজেলা, পৌর এবং ইউনিয়নগুলোতে বিএনপির পূর্নাঙ্গ কমিটি না থাকায় বেশ বেকায়দায় রয়েছেন প্রার্থী হাবিব। বিগত একাদশ সংসদ নির্বাচনের পরে পাবনা জেলা বিএনপির কমিটিসহ ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া উপজেলা, পৌর ও ইউনিয়ন কমিটি বিলুপ্ত করা হয়। এরপর থেকে নতুন কমিটি গঠন হয়নি। এই জন্য বিলুপ্ত হওয়া কমিটির কোন নেতাকর্মীই দলীয় প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবের পক্ষে এখনো সাঁড়া দেননি। ধানের শীষ প্রতীকের পোস্টার ও প্রচার মাইক বের না হলেও হাবিব নিজের একান্ত কিছু নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন, বাজার ও দোকানমোড়ে লিটলেট বিতরণের মাধ্যমে গণসংযোগ করছেন। বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে নারী ও পুরুষ ভোটারদের সঙ্গে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে ভোট প্রার্থনা করছেন।
তবে প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে এখনো দেখা মেলেনি জাতীয় পার্টি (এরশাদ) লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী রেজাউল করিমের পোস্টার, মাইকিং কিংবা গণ সংযোগ বা কোনরূপ প্রচারণা।
ঈশ্বরদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান মিন্টু বলেন, নির্বাচন পরিচালনার জন্য ঈশ্বরদী উপজেলা কমিটি গঠন করে প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাসের নিকট জমা দেওয়া হয়েছে। এখনো অনুমোদন হয়নি। তবে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করার জন্য ইতোমধ্যে পাবনা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স এমপি স্বাক্ষরিত ২৩ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।
মিন্টু আরও বলেন, নির্বাচনী আচরণবিধী মেনে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচার প্রচারণা ও ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা শুরু করা হয়েছে।
ঈশ্বরদী উপজেলা বিএনপির আহবায়ক সাবেক এমপি আব্দুল বারী সরদার বলেন, ঈশ্বরদীতে বিএনপির আহবায়ক কমিটি রয়েছে। সেই কমিটির মাধ্যমেই নির্বাচন পরিচালনা করা হবে। তবে নির্বাচন পর্যবেঙ্গনের জন্য কেন্দ্র থেকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আহবায়ক করে ১০ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।
পাবনা জেলা নির্বাচন অফিসার ও পাবনা-৪ আসনের উপ নির্বাচনের রির্টানিং অফিসার আব্দুল লতিফ শেখ বলেন, ঈশ্বরদী-আটঘরিয়াতে নির্বাচনী আচরণবিধী মেনেই প্রার্থীরা প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছেন। এখন পর্যন্ত আচরণ বিধি লঙ্ঘনের কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য, আওয়ামীলীগের ৫ বারের সংসদ সদস্য সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুজনিত কারণে আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর আসনিতে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
বাংলার কথা সেপ্টেম্বর ১২, ২০২০

এই রকম আরও খবর

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn