বুধবার , ১২ অক্টোবর ২০২২ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

নোয়াখালীতে জেলা পরিষদ সদস্য প্রার্থীর বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ  

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
অক্টোবর ১২, ২০২২ ১০:০২ পূর্বাহ্ণ

নোয়াখালী প্রতিনিধি :
নোয়াখালীর চৌমুহনী বাজারে জেলা পরিষদের সদস্য পদপ্রার্থী মহিন উদ্দিনের বিরুদ্ধে সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী পরিবার।
গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে চৌমুহনী বাজারে অবস্থিত ওই মার্কেটের সামনের রাস্তায় আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে এমন অভিযোগ করা হয়।
লিখিত বক্তব্যে জাহানারা বেগম বলেন, আমার পিতা আলী আজ্জম সওদাগরের দশ সন্তান। বাবা মার মৃত্যুর পর আমাদের ৬ ভাই বোনদের কাউকে সম্পত্তি বুঝিয়ে দেয়নি। আমরা বোনেরা হাজীপুর সাকিনের বাসিন্দা মহিন উদ্দিনের সহযোগিতা চাই এবং তাকে পাওয়ার অব এটর্ণী প্রদান করি। তিনি আমাদের পিতা-মাতা থেকে ওয়ারিশ হিসেবে প্রাপ্ত সমস্ত সম্পত্তি হিস্যানুসারে উদ্ধার করে দিলে আমরা বোনেরা তাকে কিছু সন্মানী প্রদান করব মর্মে বলি। কিন্তু মহিন উদ্দিন কুট কৌশলের আশ্রয় নিয়ে প্রতারনার উদ্দেশ্যে আমাদের নিকট হতে কিছু ব্ল্যাংক স্ট্যাম্পে সাক্ষর গ্রহণ করে খালি স্ট্যাম্পগুলো তার নিকট গচ্ছিত রাখেন। পরবর্তীতে আমাদেরকে ভুল বুঝিয়ে বেগমগঞ্জ সাব রেজিস্ট্রি অফিসে রেজিস্ট্রিকৃত বিগত ২০১৯ সালের ২ মে তারিখের ৩৭৬৩ নং আমমোক্তারনামা দলিল মূলে ওয়ারিশ হিসেবে প্রাপ্ত সমস্ত সম্পত্তির আমমোক্তার নিযুক্ত হন। শুধু তাই নয়, মহিন উদ্দিন আমাদের ভাইদের নিকট থেকে ১ শতাংশ সম্পত্তি বা ১২ লাখ টাকা নগদে গ্রহণ করে আমাদেরকে না দিয়া আত্মসাৎ করেন। তাছাড়া মহেষগঞ্জ বাজারস্থ একটি দোকান ঘর আমাদেরকে না জানাইয়া ২৪ লাখ টাকা বিক্রি করে ওই টাকা আত্মসাৎ করেন।
উক্ত মহিন উদ্দিন হাজীপুর মৌজায় অবস্থিত নাপিতেরপুল নামক স্থানে অবস্থিত আমাদের ১১ টি দোকানের ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে ৪০ লাখ টাকা সেলামী বাবত গ্রহণ করেন এবং ২০১৯ সালের জুন মাস থেকে গত মাস পর্যন্ত ৩ বছর ৩ মাসের ভাড়া বাবত ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্নসাৎ করেন।
আমরা আমাদের প্রাপ্ত টাকা চাইলে তিনি আমাদের বিভিন্ন হুমকি ধমকি প্রদান করেন। তার নিকট থাকা খালি স্ট্যাম্প ও আমমোক্তারনামার মাধ্যমে আমাদের সমস্ত সম্পত্তি বিক্রি করে টাকা আত্নসাতের হুমকি দেন। তার এমন হুমকি ধমকিতে আমরা চরম আতংকে দিনাতিপাত করছি।
মহিন উদ্দিন একজন চাঁদাবাজ, জোর জুলুমবাজ, দখলকারী ও সন্ত্রাসী। সে আমাদের মত বহু নিরীহ মানুষকে পথের ভিখারী বানিয়েছে। কেউ তার ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পান না। তাই মহিন উদ্দিনের প্রতারণা অর্থ ও সম্পত্তি আত্মসাৎ, জবরদখল, চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশ মহাপরিদর্শকের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।
অভিযোগ অস্বীকার করে মহিন উদ্দিন বলেন, যা হয়েছে তার সব ধরণের কাগজপত্র ও স্বাক্ষীও রয়েছে। আমার সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য কারও ইন্ধনে তারা এমন করছে।

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ