নিজের বাড়িকে কীভাবে জীবাণুমুক্ত রাখবেন?

বাংলার কথা ডেস্ক ০

দিন দিন করোনার ভাইরাসজনিত রোগের প্রবণতা বৃদ্ধির কারণে সমস্ত স্কুল, কলেজ, অফিস, শপিং মল, সুপার মার্কেট, ইত্যাদি বন্ধ রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে সরকার থেকে। করোনার হাত থেকে মানুষকে বা দেশকে বাঁচাতে বেশিরভাগ সময় বাড়িতে থাকার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। প্রত্যেকেই নিজের সুরক্ষার জন্য মুখে মাস্ক পরছে এবং হাত পরিষ্কার রাখার জন্য স্যানিটাইজার বা সাবান ব্যবহার করছে।

কিন্তু এতকিছুর পাশাপাশি আপনাকে এটাও বুঝতে হবে যে করোনার ভাইরাসের ঝুঁকি বাড়ির বাইরে যতটা আছে, বাড়ির ভিতরেও ততটাই রয়েছে। তাই, ভাইরাস থেকে বাঁচতে আপনার বাড়ির পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দিকেও বিশেষ মনোযোগ দেওয়া উচিত। তাই, আজ আমরা আপনাদের জানাব করোনার ভাইরাসের ঝুঁকি কমাতে কীভাবে আপনি আপনার ঘর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখবেন।

নোংরা ঘর জীবাণুর আখড়া

দেশের চলমান পরিস্থিতির কারণে প্রত্যেকেই তাদের বেশিরভাগ সময় ঘরে বসে কাটাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে ঘরে যদি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় না রাখা হয় তবে ঘরে জীবাণুর আখড়া হতে পারে। তাই আপনি প্রতিদিন যেরকমভাবে ঘর পরিষ্কার করেন সেটাই বজায় রাখুন বা আরও ভালভাবে ঘর পরিষ্কার করুন। যদি বাড়িতে অসুস্থ কেউ থাকে তবে ঘর পরিষ্কারের দিকে আরও বেশি মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন।

কী কারণে সংক্রমণ বেশি পরিমাণে ছড়িয়ে পড়তে পারে?

যদি বাড়ির কোনও অসুস্থ ব্যক্তির কাশি এবং হাঁচিজনিত সমস্যা থাকে বা কোনও সংক্রামিত ব্যক্তি থাকে তবে তার দ্বারা স্পর্শ করা সমস্ত জিনিসই দূষিত হয়ে যাবে। কাশি এবং হাঁচি দেওয়ার সময় যদি সে মুখ না ঢাকে তবে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা দ্বিগুণ হয়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে বাড়ির টেলিভিশন, রিমোট, রান্নাঘর, আলমারি, ফ্রিজ, সমস্ত দরজার হ্যান্ডল, কল, সুইচ বোর্ড, ফোন, চাদর, বালিশের কভার ইত্যাদি পরিষ্কার করার দিকে অতিরিক্ত মনোযোগ দেওয়া উচিত।

এইভাবে পরিষ্কার করুন

আপনি যদি নিজের বাড়িকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ থেকে রক্ষা করতে চান তবে ফিনাইল এবং লিক্যুইড ব্লীচ (সোডিয়াম হাইপোক্লোরাইট) নিন। এরপর, কিছুটা ব্লীচে পরিমাণমতো জল দিন, দুই থেকে চার মিনিট অপেক্ষা করুন যাতে এটি আপনার চোখে না লাগে। এরপর আপনি গ্লাভস পরে নিন এবং যে জায়গাটি পরিষ্কার করতে চান সেখানে এটি ছড়িয়ে দিন। প্রায় ১৫ মিনিট অপেক্ষা করার পরে, পরিষ্কার কাপড়ের সাহায্যে জায়গাটি মুছুন।

এই টিপসগুলি আপনার কাজে লাগবে

ক) রান্নাঘরের থালা বাসন পরিষ্কার করতে আপনি গরম জল ব্যবহার করতে পারেন। গরম জল দিয়ে জীবাণু ধ্বংস করা সহজ হয়। আপনার রান্নাঘরটিও পরিষ্কার রাখা উচিত।

খ) আপনার রান্নাঘর এবং পরিষ্কার করার জন্য ব্যবহৃত কাপড়কে গরম জলে পরিষ্কার করা উচিত। এটি সম্পূর্ণ শুকানোর পরে তা ব্যবহার করুন।

গ) বাড়িতে যদি কোনও ব্যক্তি অসুস্থ থাকে তবে তার কাপড়টি আলাদা করে ধোবেন। তার কাপড়গুলি ধুয়ে নেওয়ার পরে সেগুলি ডেটল জলে ভিজিয়ে তারপর আপনি তা শুকাতে পারেন।

স্ব-সুরক্ষাও গুরুত্বপূর্ণ

ঘরের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা শুরু করার আগে আপনার মুখ, হাত এবং মাথা ঢেকে নিন। পরিষ্কার করার সময় আপনার চোখ, নাক এবং মুখে স্পর্শ করা এড়িয়ে চলুন। পরিষ্কারের জন্য যেকোনও কাপড় বা ফেলে দেওযা কাপড় ব্যবহার করুন। কাজ শেষ হওয়ার পরে এগুলি ভাল করে ধুয়ে শুকিয়ে দিন। এগুলি পরিষ্কার করতে আপনি ওয়াশিং পাউডার সহ গরম জল ব্যবহার করতে পারেন। সবশেষে, প্রায় ৩০ সেকেন্ডের জন্য আপনার হাত সাবান দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ফেলুন।

সূত্র:বেঙ্গলি বোল্ড স্কাই।

বাংলার কথা/অ.পা/মে ১, ২০২০

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email