বুধবার , ২৩ নভেম্বর ২০২২ | ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

নারী নির্যাতন মানবাধিকারের লঙ্ঘন : ফজিলাতুন নেসা

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
নভেম্বর ২৩, ২০২২ ১:৪৮ অপরাহ্ণ

নিউজ ডেস্ক :
নারী নির্যাতন মানবাধিকারের লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সরকারের সঙ্গে সবাইকে একসাথে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা।

তিনি বলেন, নারী নির্যাতন কোনো দেশের একক সমস্যা নয়, এটা বৈশ্বিক সমস্যা।

নারী নির্যাতন মানবাধিকার লঙ্ঘন করে। সময়ের পরিবর্তনের সাথে নারী নির্যাতনের ধরনও পরিবর্তিত হচ্ছে।

বুধবার (২৩ নভেম্বর) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, জাতিসংঘ বাংলাদেশ এবং এলসিজিওয়েজ এর যৌথ উদ্যোগে ১৬ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এবং ন্যাশনাল ডায়ালগে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মানিত সচিব মো: হাসানুজ্জামান কল্লোল। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশের নিযুক্ত ইউএন রেসিডেন্ট কোঅর্ডিনেটর গোয়েন লুইস এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেকসান্দ্রা বার্গ ফন লিন্ডে। স্বাগত বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব জনাব মো: মুহিবুজ্জামান।

প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা বলেন, প্রতি তিনজনে একজন নারী তার জীবন পরিক্রমায় শারীরিক, মানসিক বা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়। নারীর প্রতি সহিংসতা ও বাল্যবিয়ে সামাজিক সমস্যা এবং নারীর অধিকারের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধ। সরকারের সাথে বেসরকারি সংস্থা, উন্নয়ন সহযোগী, নাগরিক সমাজ, রাজনৈতিক সংগঠন, স্বেচ্ছাসেবী মহিলা সংগঠন, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান, কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ এবং গণমাধ্যম ঐক্যবদ্ধ হয়ে সচেতনা তৈরির মাধ্যমে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ করতে হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারী উন্নয়ন, ক্ষমতায়ন ও নারীর প্রতি সহিংসতারোধে বিভিন্ন নীতি, আইন, কৌশল ও কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। উন্নয়নের সকল ক্ষেত্রে নারীরা দক্ষতার সাথে কাজ করছে।

২৫ নভেম্বর নারী নির্যাতন প্রতিরোধ দিবস ও জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে ১৬ দিনব্যাপী প্রচারাভিযান পক্ষ পালনের জন্য বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, উন্নয়নসহযোগী প্রতিষ্ঠান, এনজিও, সিভিল সোসাইটির উদ্যোগে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে।

জেন্ডারভিক্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে ভিডিও মেসেজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত অ্যান ফন লিউয়েন, বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি, বাংলাদেশে নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার জেরেমি ব্রুর, বাংলাদেশে নিযুক্ত বৃটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটারটন ডিকসন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর ও সংস্থার প্রধানরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধে প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। প্যানেল আলোচনাটি সঞ্চালনা করেন ইউএনডিপি বাংলাদেশের জেন্ডার স্পেশালিস্ট শারমিন ইসলাম। প্যানেলিস্ট হিসেবে ছিলেন মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ফরিদা পারভীন, আইন ও বিচার বিভাগের যুগ্ম সচিব উম্মে কুলসুম, ডিএফএটি এর হেড অব ডেভেলপমেন্ট কোঅপারেশন কেট স্যাংস্টার, ব্র্যাকের পরিচালক নবনীতা চৌধুরী এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তাসলিমা ইয়াসমিন। অনুষ্ঠানে পরিবর্তনের দূত নামক শিরোনামে নারী নেতৃত্ব এবং সক্রিয়তার ওপর ভিডিও বার্তা দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দূতাবাসের ৭ জন নারী রাষ্ট্রদূত।

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ