রাজশাহীতে দেশব্যাপি নারী ও শিশুর উপর ঘৃণ্য সহিংতার প্রতিবাদে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক o

রাজশাহী মহানগর নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের আয়োজনে নগরীর সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার (১০ অক্টোবর) বেলা ১১টা থেকে ঘন্টাকালব্যাপি এই মানববন্ধন থেকে সিলেটের এমসি কলেজ চত্বরে নববধূর সম্ভ্রমহানি এবং নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধূর উপর নারকীয় বিভৎসতাসহ দেশব্যাপি অব্যাহত নারী ও শিশুর উপর ঘৃণ্য সহিংতার প্রতিবাদে ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

রাজশাহী মহানগর নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের আহবায়ক অধ্যাপক ড. আখতার হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজাশাহী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক রাসিক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসন বুলবুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক সাফিকুল ইসলাম শাফিক, জিয়া পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহকারী মহাসচিব প্রফেসর সেলিম আরিফ আই.বি.এ, রাবি জাতীয়তাবাদী শিক্ষা ফোরামের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের সদস্য প্রফেসর ড. মাসুদুল হাসান খান মুক্তা, রাজশাহী বারের সাধারণ সম্পাদক পারভেজ তৌফিক জাহেদী ও জাসাস রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা।

আরো উপস্থিত ছিলেন মহানগর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হাসনাইন হিকোল, বর্তমান সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, সিনিয়ির সহ-সভাপতি সামসুল হক মিনু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খালেদ বীন তারেক, সাংগঠনিক সম্পাাদক আনন্দ কুমার, মহানগর তাঁতী দলের সভাপতি আরিফুল শেখ বনি, মহিলা দল কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক রোকসানা বেগম টুকটুকি, মহানগর মহিলা দলের যুগ্ম আহবায়ক এ্যাডভোকেট রওশন আরা পপি, অধ্যাপিকা সখিনা খাতুন, মুসলেমা বেলী, গুলশান আরা মমতা, জান্নাতুল ফেরদৌস, রোজি ও জরিনা, মহানগর শ্রমিক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, সিনিয়র সহ-সভাপতি মুর্তুজা ফামিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকবর আলী জ্যাকি সহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী।

সভাপতির বক্তব্যে রাজশাহী মহানগর নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের আহবায়ক অধ্যাপক ড. আখতার হোসেন বলেন, ২০১৫ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৩১৩৬ জন নারী ও শিশু ধর্ষনের শিকার হয়েছে। আর ২০১৯ সাল পর্যন্ত বিচার হয়েছে মাত্র ১৬৪টি। ২০১৯ সালে শিশু ধর্ষিত হয়েছে ১০০৫ জন। গড়ে প্রতিদিনি ৩জন করে শিশু ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। এরমধ্যে ৪৭জন শিশুকে গণধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছিলো বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, ২০১৮ সালে শিশু ধর্ষনের ঘটনায় দেশে কমপক্ষে ৫৭১টি মামলা হয়েছে। ২০১৯ সালে মোট ১৪১৩ জন নারী ধর্ষণের  শিকার হয় বলে উল্লেখ করেন তিনি।

সভাপতি আরো বলেন, এর মধ্যে ৭৬ জন ধর্ষণের পরে হত্যা এবং ১০জন নিজেই আত্মহত্যা করে। ২০১৮ সালের থেকে ২০১৯ সালে ধর্ষনের সংখ্যা দ্বিগুন ছিলো। বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির তথ্য মতে চলতি বছরের জানুয়ারী মাস থেকে আগষ্ট পর্যন্ত বিভিন্ন পত্রিকার মাধ্যমে তারা এই ধর্ষণ ও হত্যা নিয়ে একটি প্রতিবেদন তৈরী করেন। সেখানে চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে আগস্ট মাস পর্যন্ত ৯৮২টি ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে বলে উল্লেখ করা হয়। এরমধ্যে ৪১ জন ধর্ষনের পর আহত হয়ে মারা যায়, আর ৯জন আত্মহত্যা করে। এই সকল ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে কঠোর শাস্তির দাবি জানান তিনি।

বাংলার কথা/পিআর/অক্টোবর ১০, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: