তানোরে মানবিক সেবায় কাজ করছেন ওসি


তানোর প্রতিনিধি o

তানোরে মানবিক সেবায় কাজ করছেন তানোর থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) রাকিবুল হাসান। তিনি দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সাধারণ মানুষের আশ্রয় ও ভরসার প্রতিক হয়ে উঠেছেন। মাদক উদ্ধারে যেমন ভাবে সফল ঠিক তেমনি ভাবে দরিদ্রসহ সকল ভালো কাজে সহায়তা প্রদানের ফলে তিনি এলাকায় হয়ে উঠেছেন মানবিক পুলিশ। সেই সাথে থানা চত্বর হয়ে উঠেছে পরিস্কার ঝক ঝকে চক চকে। থানা এরিয়ায় লাগিয়েছেন বিভিন্ন ফলজ গাছ।

সারাদেশের বিভিন্ন থানা ও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশের নামে যখন একের পর এক বিভিন্ন অপকর্মের খবরে পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে তখন তানোর থানার ওসি রাকিবুল হাসানের কর্মদক্ষতা ও উদারতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন দরিদ্রদের সহায়তায়। অভিযোগ কলে কাউকে আর দিনের পর দিন ঘুরতে হচ্ছেনা।

তিনি তানোর থানার ওসি (তদন্ত) হিসাবে যোগ করে কর্মদক্ষতায় প্রমোশন পেয়ে তানোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) দায়িত্ব পেয়েছেন। তিনি তানোর থানায় যোগ দানের পর থেকেই সাধারণ মানুষের হয়রানি কমিয়ে নিরবেই জনগনের সেবক হিসেবে জনসেবা পৌছে দিতে শুরু করেন জনগনের দৌড় গড়ায়।

তানোর থানার ওসি রাকিবুল হাসান জনগনের হয়রানি কমিয়ে সেবা প্রদানের জন্য থানার সকল অফিসারদের নিয়ে নিয়মিত আলোচনা করেন। থানায় অভিযোগ বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে সাধারণ মানুষ সহজেই সরাসরি তার সাথে কথা বলতে পারায় সহজেই সমস্যার সমাধানও পাচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

এতে করে জনগন হয়রানী থেকে মুক্ত হয়েছেন। সেবার মান আরও বাড়াতে নির্লস ভাবে কাজ করছেন। সাধারণ মানুষ তার কাছে এসে সরাসরি তাদের অভিযোগ বলতে পেরে স্বস্তি প্রকাশ করছেন। ফলে তানোর থানা এলাকায় ইভটিজিং, সন্ত্রাস, জঙ্গি তৎপরতা, মাদক, জুয়াসহ চুরি ডাকাতি।

এলাকাবাসী বলছেন, ওসি রাকিবুল হাসানের তৎপরতায় তানোর থানা পুলিশ এখন জনগনের বন্ধুর মত পাশে থাকায় পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থা ফিরেছে। ছোট ছোট দ্বন্দ গুলো তিনি থানায় নিরশন করে দেয়ায় জনগনের হয়রানি কমেছে। বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের টহল জোরদার করার পাশাপাশি মাদক দুর করতে বিভিন্ন স্থানে নিয়মিত মাদক বিরোধী অভিযান চালাচ্ছেন তিনি। এলাকায় বিভিন্ন মিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক শিক্ষার্থীদের নিয়ে সন্ত্রাস নকশকতা ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে বাল্য বিয়ে রোধসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সচেতনতামূলক সভা সমাবেশ করছেন তিনি।

আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এবং অপরাধীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনতে ৭টি ইউনিয়ন ও ২ টি পৌরসভায় মেয়র, কাউন্সিলর, চেয়ারম্যান, মেম্বার, স্থানীয় সাংবাদিক, কমিউনিটি পুলিশি এবং গ্রাম পুলিশদের নিয়ে মাদক, ইভটিজিং, সন্ত্রাস, জঙ্গি তৎপরতা, চুরি ডাকাতি বন্ধে সভা সমাবেশ করেছেন তিনি।

তানোর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাইনুল ইসলাম সেলিম বলেন, করোনা কালে সাধারণ মানুষকে যে ভাবে সহায়তা দিয়েছেন তা প্রশংশণীয়, তিনি একজন বিনয়ী পুলিশ অফিসার। তিনি বলেন, ওসির আচরনে ও মানব সেবা প্রশংশনীয়। তিনি আরো বলেন জনগণের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ন্যায় ও নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করছেন তিনি।

এ ব্যাপারে তানোর থানার এসআই সানোয়ার হোসেন বলেন, বর্তমান ওসি সাধারণ মানুষের সেবা প্রদানে খুবই তৎপর। তিনি বলেন, সাধারণ জনগনের পাশাপাশি থানার সকল অফিসারসহ পুলিশ সদস্যাদের কাছেও তিনি খুবই জনপ্রিয় ও তিনি সত্যি কারের একজন মানবিক পুলিশ অফিসার।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে তানোর থানার ওসি রাকিবুল হাসান বলেন,‘ জনগনের সেবার জন্যই পুলিশ, চেষ্টা করছি, যেন কোন মানুষ পুলিশের দ্বারা হয়রানি না হয় সেই দিকে নজর রাখা হয়েছে।’ পুলিশের প্রতি সাধারণ মানুষের যে নেগেটিভ ধারনা তা দূর করে পুলিশকে মানব সেয়ায় নিয়োজিত হয়ে কাজ করতে সকরের প্রতি আহবান জানান তিনি।

বাংলার কথা/সাইদ সাজু/অক্টোবর ১৩, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email
%d bloggers like this: