শনিবার , ২৯ অক্টোবর ২০২২ | ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

চারঘাট থানার সাজানো মামলার অভিযোগ তুলে নেওয়ার দাবি ভুক্তভোগী পরিবারের 

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
অক্টোবর ২৯, ২০২২ ১:৩৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাজশাহী :

রাজশাহীর চারঘাট থানা পুলিশের রহস্যময়ী ভুমিকায় নিরহ মানুষের নামে মামলা হয়রানির প্রতিবাদে রাজশাহী মডেল প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার। শনিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে নিজের উপর ঘটেযাওয়া  ঘটনা নিয়ে কথা বলেন চারঘাট উপজেলার বড়বড়িয়া গ্রামের আসরাফ আলীর স্ত্রী   সুফিয়া বেগম। সুফিয়া বেগম বলেন ২৩ অক্টোবর গভীর রাতে চারঘাট থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক সোহাইল সহ কিছু পুলিশ সদস্য আমার বসত বাড়িতে গিয়ে দরজা জানালার উপর শব্দ করে আঘাত করতে থাকে তাদের এমন কান্ডে আমরা দরজা খুলে শব্দ করার  কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন আমরা আপনাদের ডেকেছি কেউ বাহিরে না আসার কারণে এমন ভাবে ডেকেছি।

তিনি বলেন আমি ও আমার স্বামী আশরাফ বাহিরে আসা মাত্রই পুলিশ আমাদের টানা হেচড়া শুরু করেন। প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন থানায় যেতে হবে। সুফিয়া বেগমকে টেনে গাড়িতে উঠাতে গেলে স্থানিয় ইউপি সদস্য মতিউর রহমান পুলিশকে বলেন কোন মহিলা পুলিশ সদস্য ছাড়া তারা কিভাবে একজন মহিলা মানুষকে গাড়িতে নিচ্ছেন। ইউপি সদস্যের এমন প্রশ্নের পরে এস আই সোহাইল ইউনিয়ন পরিষদের অপর ইউপি সদস্যকে ডেকে একজন মহিলা গ্রাম পুলিশকে নিয়ে আসতে বলেন। স্থানিয়রা জানান মহিলা গ্রামপুলিশ এসে সুফিয়া বেগমকে পুলিশের গাড়িতে তুলে চারঘাট থানায় নিয়েযান। রাতে স্বামী স্ত্রীকে থানায় নিয়ে গেলেও এর কারন জানেনা তারা। সকালে তারা থানা হাজত থেকে জানতে পারেন তাদের নামে নুরুন্নাহার নামের একজন মহিলা আমগাছ কাটার অভিযোগ দায়ের করেছেন। ২৪ তারিখ সকালে তাদেরকে কোর্ট হাজতে প্রেরণ করলে আদালত সুফিয়া বেগমের জামিন মুঞ্জুর করেন। পুলিশের রহস্যময়ী প্রতিবেদনের কারণে আসরাফ আলীকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।

পরের দিন সুফিয়া বেগম জামিনে মুক্ত হয়ে বাড়িতে আসলে গ্রামবাসি সহ ৪জন ইউপি সদস্য একত্রিত হয়ে ঘটনা জানার চেষ্টা করেন। ইউপি সদস্যরা গণমাধ্যমকর্মীদের জানান আমগাছ কাটার যে অভিযোগ উঠেছে সেটির সাথে আসরাফ পরিবারের কোন সম্পর্ক নেই। উল্টো এই রহস্যময়ী মামলার বাদি নুরুন্নাহারের বিরুদ্ধে তারা অভিযোগ তুলে বলেন নুরুন্নার ও তার ছেলে এই  পরিবারকে অতিষ্ট করে তুলেছে। ক্ষমতা আর অর্থ দিয়ে তারা পুলিশের সাথে হাত মিলিয়ে এই পরিবারকে হয়রানি করতে বসেছে। এই রহস্যময়ী মামলার সাক্ষীদের রয়েছে নানা অভিযোগ থানা পুলিশ কোন তদন্ত ছাড়া যেই তিনজন ব্যক্তিকে সাক্ষীকরে মামলা রেকর্ড করেছেন তাদের তিনজন জানেনা তাদের কোন মামলায় সাক্ষী করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে সেই সাক্ষীগণ উপস্থিত হয়ে বলেন কেউ প্রতিহিংসা মুলক আমাদের সাক্ষী করেছেন। কোন পুলিশ তাদের কোন জিজ্ঞাসা করেছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তারা বলেন কোন পুলিশের সাথে তাদের কোন কথা হয়নি। তারাও এই মামলার বাদি নুরুন্নাহারের কর্মকান্ডের প্রতিবাদ জানান। মামলার বাদি নুরুন্নাহারের ভাইয়ের ছেলে গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন তার ফুপু একজন ভয়ংকর প্রকতির মানুষ। এই মামলা একটি চক্রান্ত বলে দাবি করেন তিনি। হটাৎ মামলা সাক্ষীদের সাথে কোন প্রকার কথা না বলে কোন  তদন্ত ছাড়া নিরহ মানুষদের গ্রেপ্তার মহিলাকে টেনে হিচড়ে সম্মান হানীকরার বিষয় নিয়ে ২৯অক্টোবর রাজশাহীর পুলিশ সুপার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন সুফিয়া বেগম। সেই সাথে ভুয়াসাক্ষী তৈরি করে কেন তাদের হয়রানি করা হলো সেটির তদন্ত চেয়ে রাজশাহী রেঞ্জের ডি আই জির নিকট লিখিত অভিযোগ দেওয়ার প্রক্রিয়া সম্পর্ন করেছেন। মামলার সাক্ষীগণ এরই মাঝে এফিডেভিড করে  ষ্টাম্পের মাধ্যমে আদালতে লিখিত দিয়েছেন।

 

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ

আপনার জন্য নির্বাচিত

দেশ ও জনগণের কল্যাণই প্রধানমন্ত্রীর প্রধান লক্ষ্য: স্পিকার

ইউক্রেনকে ড্রোন সংক্রান্ত অভিযোগের প্রমাণ দিতে বললেন ইরান

যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাচনী প্রচারে এক রাজ্যে বাইডেন-ওবামা-ট্রাম্প

রুশ হামলায় দিশেহারা ইউক্রেন, ১০ জন নিহত

রেকর্ড ১০৯৪ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে, ৪ জনের মৃত্যু

নোয়াখালীতে অশ্লীল ছবি ধারণ করে চাঁদা দাবি, আটক ৫

রাজশাহীতে ৩৮ হাজার কৃষক পাচ্ছেন তিন কোটি টাকার সার ও বীজ সহায়তা 

পুলিশ-মিলিটারি দিয়ে সবসময় নির্বাচন সুষ্ঠু করা যায় না : সিইসি

উত্তেজনার মধ্যে বড় ধরনের বিমান মহড়া চালাল আমেরিকা-দক্ষিণ কোরিয়া

রাজশাহীতে গৃহবধূ সাদিয়া হত্যার বিচারের দাবিতে মনববন্ধন