সোমবার , ১৭ অক্টোবর ২০২২ | ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

গাইবান্ধা ভোট বন্ধের কারণ জানতে ৬৮৫ জনের বক্তব্য নেবে তদন্ত কমিটি

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
অক্টোবর ১৭, ২০২২ ১২:৪৯ অপরাহ্ণ

নিউজ ডেস্ক :
তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, ৬৮৫ জনের শুনানি করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিবো। ১৮-২০ অক্টোবর সরেজমিন তদন্তে নামবে বলেও তিনি জানাব। সোমবার (১৭ অক্টোবর) তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, ‘আমরা কাজ শুরু করেছি। কার্যপরিধি মেনে কমিটি বন্ধ ঘোষিত কেন্দ্রগুলোর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্য, গণমাধ্যমকর্মী, রিটার্নিং অফিসার, প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর সঙ্গে কথা বলবো। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত নোটিশও জারি করা হয়েছে।’

তিনি বলেন,গাইবান্ধা-৫ উপ নির্বাচনে অনিয়ম চিহ্নিত করে সুপারিশ দিতে নির্বাচন কমিশনের তদন্ত কমিটি ৬৮৫ জনের বক্তব্য নেবে।মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে তদন্ত কমিটি সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলবেন।সবার (৬৮৫ জন) শুনানি করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিবো।
তিনি আরও বলেন,আমরা আজ গাইবান্ধা যাচ্ছি। নির্ধাারিত সময়ে নির্ধারিত স্থানে সংশ্লিষ্টদের বক্তব্য নেওয়া হবে। আশা করি ৭ কাযদিবসের মধ্য সুপারিশ চূড়ান্ত করা যাবে।

ইসির এ তদন্ত কমিটির কর্মপরিধি-

১.পোলিং এজেন্ট বা ভোটার ছাড়া অন্যান্য ব্যক্তিদের গোপনকক্ষে প্রবেশ, গোপনকক্ষে ভোটদান প্রত্যক্ষকরণ, ভোটারদের কোনো প্রার্থীকে ভোটদানে বাধ্যকরণ বা প্রভাবিতকরণ, মোবাইল ক্যামেরা দিয়ে গোপনকক্ষের ছবি ধারণ ইত্যাদির বিষয়ে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন ও দোষী/দায়ী ব্যক্তি চিহ্নিতকরণ;

২.দলীয় প্রতীক বা একই রংয়ের পোশাক পরিধান করে কোনো পোলিং এজেন্টদের দায়িত্ব পালন অথবা উক্তরূপ পোলিং এজেন্ট বা একইরূপ পোশাক পরিহিত ব্যক্তিরা বিক্ষিপ্তভাবে ভোটকক্ষে বিচরণ, কোনো ক্ষেত্রে গোপনকক্ষে প্রবেশ, উল্লিখিত পোশাক উপঢৌকন বা অর্থের বিনিময়ে নেওয়া কিনা ইত্যাদি ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটন ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের চিহ্নিতকরণ।

৩.পোলিং এজেন্ট বা অবৈধ কোন ব্যক্তি গোপন কক্ষে প্রবেশ করে নিজেই ভোটপ্রদান, ভোটার কোন প্রার্থীকে ভোট দিচ্ছেন তা গোপন কক্ষে উঁকি দিয়ে বা ঢুকে অবলোকন করা, ভোটপ্রদানে বাধা প্রদান, ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা ভোটকক্ষে ঢুকে নিজেই ভোট দেওয়া বা ভোটারকে প্রভাবিত করা অথবা পোলিং এজেন্ট নয় এ ধরনের ব্যক্তি ভোটদানে ভোটারকে প্রভাবিত করার বিষয়ে দায়ী ব্যাক্তিদের শনাক্তকরণ।

৪.নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের বিষয়ে সব পদক্ষেপ গ্রহণের পরেও এ ধরনের ঘটনা কেন ঘটলো, কারা দায়ী তা চিহ্নিত করা; এবং এসব বিষয়সহ প্রাসঙ্গিক অন্য কোনো বিষয় থাকলে তা পর্যালোচনা করে সুপারিশ করবে কমিটি। তদন্ত কর্যক্রম যেভাবে পরিচালনা করা হবে।

মঙ্গলবার গাইবান্ধা সার্কিট হাউজে ১১ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৬৬ জন সহাকারী প্রিজাইডিং অফিসার, ৫৫ জন পোলিং এজেন্ট (প্রত্যেক প্রার্থীর পক্ষ থেকে), ফুলছড়ি প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, গাইবান্ধা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ ১৩৬ জনের বক্তব্য নেবে তদন্ত কমিটি।

বুধবার সাঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সভাকক্ষে ৪০ জন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা, ২৭৮ জন সহকারী প্রিইডিং কর্মকর্তা, ২০০ জন পোলিং এজেন্ট (প্রত্যেক প্রার্থীর পক্ষে), সাঘাটা প্রেস ক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, গণমাধ্যমকরমী, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা, সাঘাটা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ ৫২২ জনকে উপস্থিত থাকার জন্যে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা সার্কিট হাউজে, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী, ১৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি ও র‌্যাবের কমান্ডিং অফিসার দুইজন, রিটার্নিং অফিসার, পুলিশ সুপার এবং জেলা প্রশাসকসহ ২৭ জনের লিখিত বক্তব্য নেবে তদন্ত কমিটি।

এ উপনির্বাচনে ব্যাপক অনিয়মের মধ্যে ১২ অক্টোবর ভোটের মাঝপথে বন্ধ করা হয়। পরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল অনিয়মে সম্পৃক্তদের বিষয়ে বিস্তারিত জানতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটির ঘোষণা দেন।ইসির অতিরিক্ত সচিবকে আহ্বায়ক করে পরদিন তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্য হচ্ছেন ইসির যুগ্ম সচিব (প্রশাসন ও অর্থ) মো. কামাল উদ্দিন বিশ্বাস ও সদস্যসচিব ইসির যুগ্ম সচিব (চলতি দায়িত্ব) মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী। কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া জন্য বলা হয়। কমিটিকে কারিগরি কাজে সহায়তার জন্যে ইসি সচিবালয়ের আইডিইএ-২ প্রকল্পের স্কোয়াড্রন লিডার মো. শাহরিয়ার আলমকে যুক্ত করার জন্য বলা হয়েছে।

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ