ক্রিকেটে বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করেছে: ওয়াসিম আকরাম

ছবি:ইউএনবি।

বাংলার কথা ডেস্ক ০

তামিম ইকবালের ফেসবুক লাইভে মঙ্গলবার রাতে বাংলাদেশের সাবেক তিন অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদীন, আকরাম খান ও খালেদ মাসুদ পাইলটের সাথে যোগ দিয়ে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ও তারকা ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম জোর দিয়ে বলেছেন, ক্রিকেটে বাংলাদেশ দীর্ঘ পথ এগিয়েছে এবং অনেক উন্নতি করেছে।

তামিম প্রথমে মিনহজুল, আকরাম ও পাইলটকে দিয়ে অনুষ্ঠানটি শুরু করেন, পরে ওয়াসিম আকরাম বিশেষ অতিথি হিসাবে তাদের সাথে যোগ দেন। এসময় প্রায় ১৫ মিনিট পাকিস্তানি কিংবদন্তি তাদের সাথে কথা বলেন।

ওয়াসিম লাইভে বলেন, ‘আমি এই তাদের (মিনহাজুল, আকরাম ও পাইলট) সাথে অনেক ক্রিকেট খেলেছি এবং অবশ্যই আমি তাদের খুব ভালো করে জানি। আমি যখন আবাহনীর হয়ে বাংলাদেশে খেলি তখন তাদের সাথে খেলতাম, আমি তাদের বিপক্ষেও খেলেছি। মাঠে এবং মাঠের বাইরে আমরা সবসময়ই খুব ভালো বন্ধু ছিলাম। আমি যখন বাংলাদেশে ধারাভাষ্য দিতে আসি তখন তাদের সাথে আড্ডা দেই। বাংলাদেশ সবসময় আমার হৃদয়ের খুব কাছাকাছি ছিল।’

‘বাংলাদেশে যাওয়া সবসময়ই সুন্দর ছিল। ক্রিকেটে বাংলাদেশের বিপুল উন্নতি আমার জন্য অত্যন্ত গর্বের মুহূর্ত। গত দশ থেকে ১২ বছরে বাংলাদেশ অনেক উন্নতি করেছে। এখন, তারা বিশ্বের শীর্ষ দলের মতো খেলে। তোমার মতো (তামিম) অনেক ভালো খেলোয়াড় আছে যেমন: সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান,’ যোগ করেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি ক্রিকেটার।

তিনি বাংলাদেশের সাবেক তিন অধিনায়কের সাথে মজা করে বলেন, তারা যখন বাংলাদেশের হয়ে খেলেন তখন তাদের ফিল্ডিং তেমন দুর্দান্ত ছিল না, তবে এখন বাংলাদেশের ফিল্ডিং সত্যই দুর্দান্ত। ‘বাংলাদেশ এখন বিশ্বের সেরা ফিল্ডিং দলের একটি।’

১৯৯৫ সালে বাংলাদেশের ক্রিকেট অবকাঠামো তেমন উন্নত না থাকলেও ওয়াসিম ঢাকা লীগে আবাহনীর হয়ে খেলেন। বিশ্বের সেরা ক্রিকেটার হওয়া সত্ত্বেও ওয়াসিম বাংলাদেশে এসে খেলার কারণ জানতে চাওয়া ছিল তামিমের প্রথম প্রশ্ন।

‘প্রথমত আমি দেখতে চেয়েছিলাম বাংলাদেশিরা ক্রিকেটে কেমন আগ্রহী। আর্থিক লাভের কোনো চিন্তা ছিল না। আমি এসেছি কারণ কয়েকজন বাংলাদেশি বন্ধু আমাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল এবং তাদের কথার না করা অসম্ভব ছিল। আমি আবাহনীর হয়ে প্রথম যখন খেলি (মিনহাজুল, আকরাম এবং পাইলট সবাই আমার সতীর্থ ছিল)। আমি দেখলাম দর্শকে মাঠ ভরে গেছে। আমি কখনই ভাবিনি যে বাংলাদেশে ক্রিকেটের এত উন্মাদনা।’,

ওয়াসিম বলেন, তিনি বাঙালি মাছের ঝোল (ফিশ ব্রোথ) খুব মিস করেন।

১৯৯৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বিপক্ষে পাকিস্তানের হারার স্মৃতি স্মরণ করে ওয়াসিম আরও বলেন, ‘সেই দিন বাংলাদেশ অন্যান্য দিনের চেয়ে আরও ভালো দল ছিল। তারা ভালো বোলিং করেছে। তাদের মিডিয়াম পেস বোলাররা ভালো করেছে। পাকিস্তানীদের দৃষ্টিকোণ থেকে এটি ছিল অত্যন্ত হতাশাব্যঞ্জক দিন। তবে হ্যাঁ, বাংলাদেশ সেদিন ভালো ক্রিকেট খেলেছিল।’

সতীর্থ মুশফিকুর রহিমের সাথে প্রথম ফেসবুক লাইভ শুরু করেছিলেন তামিম। আর তাতে যোগ দেয়া চতুর্থ বিদেশি ক্রিকেট ব্যক্তিত্ব ছিলেন ওয়াসিম আকরাম। ফাফ ডু প্লেসি ছিল প্রথম বিদেশি ক্রিকেটার, এরপর রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলিও এই শোতে অংশ নেন।

তামিমের পরের লাইভ শোতে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের সাথে কথা বলবেন। অনুষ্ঠানটি বৃহস্পতিবার বিকেল ৩ টায় (বাংলাদেশ সময়) প্রচারিত হবে।

সূত্র:ইউএবি।

বাংলার কথা/মে ২০, ২০২০

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email