করোনার প্রভাবে আমেরিকার ধনীরা আরো ধনী : রিপোর্ট

বাংলার কথা ডেস্ক ০ 

বৈশ্বিক মহামারী করোনায় যখন বিপর্যস্ত পৃথিবীর অর্থনীতি তখন  মার্কিন অর্থনীতিতে সুবাতাস বয়ে দিল নতুন একটি রিপোর্ট। যদিও করোনা ভাইরাসের এই সংকটকালে প্রযুক্তি সংক্রান্ত কোম্পানিগুলোর আয় অনেক বেশি। অথচ আমেরিকাতে করোনার কারণে অর্থনৈতিক সংকট তৈরি হয়েছে। ভয়াবহ অর্থনৈতিক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে দেশটি।

করোনাকালীন প্রেক্ষাপটে গত মার্চের মাঝামাঝি থেকে মে মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত আমেরিকার ধনীদের সম্পদ বেড়েছে ৪৩৪ বিলিয়ন ডলার। এমনটাই বলছে নতুন একটি রিপোর্ট। গণমাধ্যম ডয়েচে ভেলে জানায়, অ্যামেরিকানস ফর ট্যাক্স ফেয়ারনেস এবং ইনস্টিটিউট ফর পলিসি ইনস্টিটিউটের ‘প্রোগ্রাম ফর ইকুয়ালিটি’ র রিপোর্ট জানা গেছে এই তথ্য।

আমেরিকানস ফর ট্যাক্স ফেয়ারনেস এবং ইনস্টিটিউট ফর পলিসি ইনস্টিটিউটের ‘প্রোগ্রাম ফর ইকুয়ালিটি’ র রিপোর্ট জানিয়েছে, এই দুই মাসে অ্যামাজনের জেফ বেজোস এর সম্পদে যোগ হয়েছে ৩৪ দশমিক ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার , সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের সম্পদে যোগ হয়েছে বাড়তি ২৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

আমেরিকার ছয়শ’র ও বেশি কোটিপতির তথ্য থেকে রিপোর্টটি তৈরি করা হয়েছে৷ মার্চের ১৮ তারিখ থেকে মে মাসের ১৯ তারিখ পর্যন্ত লকডাউন চলাকালীন তাদের আয় সংক্রান্ত তথ্য জানিয়েছে মার্কিন গণমাধ্যম ফোর্বস। প্রতিবেদনটি বলছে, এই দুই মাসে আমেরিকার কোটিপতিদের মোট সম্পদের পরিমাণ ১৫ ভাগ বেড়েছে। ২ দশমিক ৯৪৮ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে হয়েছে ৩ দশমিক ৩৮২ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার।

শীর্ষ পাঁচ মার্কিন ধনী  জেফ বেজোস,মার্ক জাকারবার্গ, বিল গেটস, ওয়ারেন বাফেট এবং ল্যারি এলিসনের মোট ৭৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের সম্পদ বেড়েছে। ফোর্বস জানায়, গত দুই মাসে শতকরার হিসেবে বেশি লাভ হয়েছে কানাডিয়ান আমেরিকান ধনকুবের  এলন মাস্কের। তার মোট সম্পদ বেড়েছে শতকরা ৪৮ ভাগ৷ এরপরেই আছেন জুকারবার্গ, যার বেড়েছে ৪৬ ভাগ, বেজোসের ৩১ ভাগ।

বাংলার কথা/অ.পা/মে ২২, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email