শুক্রবার , ২৫ নভেম্বর ২০২২ | ১৫ই মাঘ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

কটু কথা বলে অগ্রযাত্রা থামানোর চেষ্টা : সংবাদ সম্মেলনে নারীকৃষক নুরুন্নাহার

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
নভেম্বর ২৫, ২০২২ ১২:২৬ অপরাহ্ণ

শেখ মেহেদী হাসান, পাবনা (রাজশাহী) প্রতিনিধি :

বঙ্গবন্ধু কৃষি পদকসহ একাধিক জাতীয় পদকপ্রাপ্ত ঈশ্বরদীর নারী কৃষক নুরুন্নাহার বেগমের ভাবমূর্তি ক্ষুর্ণ ও তাঁকে সামাজিকভাবে হেয় করতে একটি মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে গুজব ছড়াচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। মিথ্যা ভিত্তিহীন ও কাল্পনিক তথ্য দিয়ে বিভিন্ন ধরণের সংবাদ প্রকাশ করানো হচ্ছে। যা খুবই মর্যাদাহানিকর। গ্রামের একজন সাধারন নারী কৃষক হয়ে জাতীয় পর্যায়ে ‘কৃষিতে গুরুত্বপূর্ন ব্যক্তিত্ব’ (এআইপি) হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করার পর থেকে তাঁকে নানাভাবে হেয় করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

(শুক্রবার) দুপুরে ঈশ্বরদী উপজেলার বক্তারপুর গ্রামে তাঁর নিজ বাড়িতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব অভিযোগ করেন।
সংবাদ সম্মেলনে তাঁর স্বামী রবিউল ইসলাম বিশ্বাস ও বড় ছেলে জয়বাংলা নারী উন্নয়ন সংস্থার উপ-পরিচালক প্রকৌশলী রায়হান কবির হিরকসহ কয়েকশ’ নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পর্যায়ে অবদান রাখা সফল নারী উদ্যোক্তা ও স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত জাতীয় কৃষক নুরুন্নাহার বেগম বলেন, আমার এই সাফেল্যের পেছনে আমার কঠোর পরিশ্রম আর প্রচেষ্টা যেমন রয়েছে তেমনি ঈশ্বরদীর সাংবাদিকদের অবদান সবচেয়ে বেশি। আমি সাংবাদিকদের নিকট অনেক কৃতজ্ঞ।

তিনি আরও বলেন, সরকারের মুল্যায়ন ও জাতীয় পর্যায়ে স্বীকৃতি অর্জন করার পর থেকে এলাকার কতিপয় মানুষ আমাকে ‘নারী হয়ে কেন এসব করতে হবে’ Ñ এমন কটু কথা বলে আমাকে বারবার হেনস্থা করার চেষ্টা করছেন। আমি এসব কটু কথাকে আমলে না নিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন করতে কৃষির উন্নয়নে কাজ করে যাবো।

সংবাদ সম্মেলনে তাঁর বড় ছেলে প্রকৌশলী রায়হান কবির হিরক বলেন, চার দেয়ালের গন্ডি পেরিয়ে আমার মা নুরুন্নাহার বেগম আজ দেশের একজন সমাজ উন্নয়ন কর্মী ও নারী উদ্যোক্তা। নিজ এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় সবজি, ফলমূল, পোল্ট্রি ও গাভির খামার করে নারীদের কৃষিকাজে উদ্বুদ্ধ করে যাচ্ছেন। কৃষির গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (এআইপি) হিসেবে সরকারের পক্ষ থেকে পেয়েছেন স্মারক সম্মাননা। নিজ বাড়ি ঈশ্বরদীর বক্তারপুরের মতো একটি অজোগ্রামে জয়বাংলা নারী উন্নয়ন সংস্থা নামে একটি প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেছেন। যেখানে গ্রামের কয়েক হাজার নারীদের স্বাবলম্বী করে তুলেছেন। আমার ও মায়ের ভালো কাজের ঈর্ষান্বিত হয়ে আমাকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন করা জন্য নানাভাবে চেষ্টা করা হচ্ছে। আমি অন্যায় করে থাকলে আপনারা সঠিক তথ্য উদঘাটন করে সংবাদ প্রকাশ করেন, বিচার করেন।’ আমি মাথা পেতে মেনে নেব।

 

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ

আপনার জন্য নির্বাচিত