সোমবার , ৩১ অক্টোবর ২০২২ | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

উত্তেজনার মধ্যে বড় ধরনের বিমান মহড়া চালাল আমেরিকা-দক্ষিণ কোরিয়া

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
অক্টোবর ৩১, ২০২২ ৪:২৭ অপরাহ্ণ

নিউজ ডেস্ক :
উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যে আমেরিকা ও দক্ষিণ কোরিয়া বড় ধরনের বিমান মহড়া চালিয়েছে। সোমবার যৌথভাবে দুই দেশ এ মহড়া চালায় এবং কমপক্ষে ২৪০টি যুদ্ধবিমান এতে অংশ নেয়।

উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যখন আমেরিকা ও দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক উত্তেজনা দিন দিন বাড়ছে তখন দুই দেশ এই মহড়া চালালো। পাঁচদিন ব্যাপী এই মহড়ার নাম দেয়া হয়েছে ‘দ্য ভিজিল্যান্ট স্টর্ম’।

উত্তর কোরিয়া আরেকটি পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষা করতে পারে এমন আশঙ্কার মধ্যে এই মহড়া চালাচ্ছে দুই দেশ।
পাঁচদিন ব্যাপী এ মহড়া আগামী শুক্রবার পর্যন্ত চলবে। এতে যুক্ত থাকছে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রায় ১৪০টি যুদ্ধবিমান। এর মধ্যে আছে মার্কিন নির্মিত এফ-৩৫এ স্টিলথ যুদ্ধবিমান, এফ-১৫কে এবং কেএফ-১৬ যুদ্ধবিমান।

অন্যদিকে, আমেরিকা পাঠিয়েছে প্রায় ১০০ যুদ্ধবিমান। এর মধ্যে আছে এফ-৩৫বি যুদ্ধবিমান। বিপুল সংখ্যক ইলেকট্রনিক ওয়্যারফেয়ার, ট্যাংকার বিমান, বহু উঁচুতে চলমান যুদ্ধবিমান ইউ-২। এর সঙ্গে যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার বিমান। তাদের মোতায়েন করার কথা কেসি-৩০এ ট্যাংকার ট্রান্সপোর্ট।

মার্কিন বিমান বাহিনীর মতে, দক্ষিণ কোরিয়া এবং আমেরিকা মহড়ার মধ্যে প্রায় ১৬০০ অভিযান চালাবে। অন্যদিকে, দক্ষিণ কোরিয়ার বিমানবাহিনী বলেছে, উত্তর কোরিয়ার উস্কানির জবাবে দুই পক্ষ অপারেশন এবং কৌশলগত সক্ষমতা বৃদ্ধি করবে।

সর্বশেষ এমন মহড়া প্রথম অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৫ সালে। তখন এই অপারেশনের নাম দেয়া হয়েছিল ‘ভিজিল্যান্ট এইস’। কিন্তু দক্ষিণ কোরিয়ার সাবেক প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের প্রশাসন উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নত করার চেষ্টা করেন। ফলে ২০১৮ সালে এই মহড়া স্থগিত করা হয়।

সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি।

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ