বুধবার , ২৩ নভেম্বর ২০২২ | ২২শে মাঘ, ১৪২৯
  1. অর্থনীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. খুলনা বিভাগ
  4. খেলাধুলা
  5. চট্টগ্রাম বিভাগ
  6. জাতীয়
  7. ঢাকা বিভাগ
  8. প্রচ্ছদ
  9. ফিচার
  10. বরিশাল বিভাগ
  11. বিনোদন
  12. মতামত
  13. ময়মনসিংহ বিভাগ
  14. রংপুর বিভাগ
  15. রাজনীতি

আদালত থেকে পলাতক দুই জঙ্গিকে শীঘ্রই গ্রেফতার করা হবে : আইজিপি

প্রতিবেদক
BanglarKotha-বাংলারকথা
নভেম্বর ২৩, ২০২২ ১১:৪৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী :
ঢাকার আদালত থেকে দুই জঙ্গি পালানোর ঘটনায় তিনটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে উল্লেখ করে পুলিশ মহাপরিদর্শক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেছেন, কমিটির প্রতিবেদন হাতে পেলে ওইদিন কি ঘটেছিল, কারো দায়িত্ব অবহেলা ছিলো কিনা, তা দেখে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পলাতক দুই জঙ্গিকে খুব শীঘ্রই গ্রেফতার করা হবে বলেও জানান তিনি।
বুধবার (২৩ নভেম্বর) দুপুরে রাজশাহী পুলিশ লাইন্সে ‘মাদক ও সন্ত্রাসবিরোধী সুধী সমাবেশে’ প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জাবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

পুলিশ মহাপরিদর্শ বলেন, দেশে স্থিতিশীল পরিস্থিত বজায় রাখা সকলের কর্তব্য। আগুন সন্ত্রাসের মাধ্যমে দেশের মধ্যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি ঘটনার যে চেষ্টা হয়েছিল, আবারও যদি সে ধরনের কোন চেষ্টা হয়, আগামি দিনেও আগুন সন্ত্রাসের মতো যে কোন সন্ত্রাস রুখে দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত রয়েছে।

রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিকের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক গোলাম সাব্বির সাত্তার, নর্থবেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ও রাজশাহী মহানগর পুলিশিং কমিটির সভাপতি প্রফেসর আবদুল খালেক, বিভাগীয় কমিশনার জি এস এম জাফরউল্লাহ্‌, রাজশাহী রেঞ্জ পুলিশের ডিআইজি আব্দুল বাতেন, র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল রিয়াজ শাহরিয়ার, জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল, পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দারা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার।

সুধী সমাবেশে আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বলেন, ইতোপূর্বে আগুন সন্ত্রাস যেভাবে মোকাবেলা করেছি, আগামী দিনেও সন্ত্রাসসহ দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা হলে, আমরা সেভাবেই মোকাবেলা করতে আইনশৃংখলা বাহিনী প্রস্তুত রয়েছি। তিনি বলেন, আমরা সবাই এক সঙ্গে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কাজ করছি। এতে আমরা জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম হয়েছি। কিন্তু মাদকের ক্ষেত্রে এখনো শস্তি আসেনি। আমি বিশ্বাস করি মাদকের এই সমস্যা থেকেও আমরা একদিন মুক্ত হব।
আইজিপি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেছেন, মাদক ও সন্ত্রাস থাকলে বিদেশী বিনিয়োগ হবে না, দেশে কেউ আসবে না। আমরা সমাজ থেকে এগুলো দূর করার জন্য একসাথে কাজ করে যেতে চাই। সুধী সমাবেশ শেষে পুলিশ প্রধান পুলিশ লাইন্স প্রাঙ্গনে স্থাপিত পুলিশ জাদুঘর পরিদর্শন করেন।

সর্বশেষ - প্রচ্ছদ