আজও খুব বৃষ্টি হচ্ছে


আজও খুব বৃষ্টি হচ্ছে
-ইকবাল হোসেন

আজও খুব বৃষ্টি হচ্ছে সেদিনের মতো
তুমি ভিজে চুপসে গিয়েছিলে আর
শরীরের ভাঁজে ভাঁজে লুকিয়ে থাকা উম্মাদনা
ভীষণ অবাধ্য হয়ে ডানা মেলেছিল।
বৃষ্টির জল তোমার কেশ ছুঁয়ে যাচ্ছিল নেমে
কপোল-ভ্রুযুগল-চোখের পাপড়ি-অভিমানী নাক বেয়ে
ঠোঁটে আলতো লেহন শেষে আনন্দে উচ্ছ্বসিত
চিবুক থেকে নেমে আসা বিন্দু বিন্দু জলরাশি
ভীষন আহ্লাদে থুতনিটায় ঢেউ খেলছিল।
হু হু মেঘের গর্জন, শ শ বাতাসের আতর্নাদ
দৌড়াচ্ছিল সবাই শুধু তুমি ছিলে ঠাঁই দাঁড়িয়ে
প্রথম চুম্বনের মতই অবগাহনে মেতেছিলে
অবশেষে মনে হল তোমার, কোথায় আমি?
অতঃপর লজ্জায় অবনত চোখে দিলে দৌড়
ঝাঁপিয়ে পড়লে আমার বুকে
অসম্ভব ভাললাগায় শক্ত করে ধরেছিলাম তোমায়
চিবুকটা ধরে কপোলে এঁকে দিয়েছিলাম ভালোবাসার স্মৃতিচিহ্ন।
আমি তোমার সৌন্দর্যে বিদ্যুৎপরির মতন
হারিয়ে গেছিলাম ভীষণ প্রেমের ভীড়ে
যেন অযাচিত সম্ভোগের আহবানে
আজও খুব বৃষ্টি হচ্ছে সেদিনের মতো
বৃষ্টির জল আজও সবাইকে ভিজিয়ে দিল
চিরযৌবনা প্যারিস রোড, দুপাশের শিরীষ গাছের সারি, আম্রকানন
পাখিরা উড়ছে ভেজা পালকে ভর করে
বাদ যায়নি দূরে দাঁড়িয়ে থাকা রাস্তার কুকুর ও তারে বসে থাকা কাকটাও
পুকুরের জলে দ্বিগুণ উৎসাহে সাঁতার কাটছে হাঁস
ভিজছে গাড়ি, বাড়ি, স্তম্ভ, দুর্বাঘাস, আর কফিনে মোড়া লাশের সারি
পবিত্র গন্ধে ভাসছে কর্দমাক্ত মাটির শরীর
ভীষণ নির্জনতায় শুধু ঝরঝর শব্দের উল্লাস।
তথৈবচ আমিও বেলকনির বারান্দায় স্মৃতি হাতড়ে ফিরছি
খুব করে আমারও ভিজতে ইচ্ছে করছে কিন্তু
নেই তোমার বৃষ্টিভেজা সেই গরবিনী মুখ
নেই তোমার সে চোখের অপ্রতিরোধ্য আহবান
শরীরের মাতাল করা সে ঘ্রাণও নেই
নেই দুহাতে ধরে রাখা জল ছুঁড়াছুঁড়ি আর তোমার রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে ছুটে গিয়ে আমার জড়িয়ে ধরা
নিজেকে ছাড়িয়ে নিয়ে দুমদুম মুষ্টিঘাত আবার আমারই বুকে তোমার মুখ লুকোনো।
আজও খুব বৃষ্টি হচ্ছে কিন্তু নেই সেসবের কোনকিছু।

বাংলার কথা/আগস্ট ০২, ২০২০

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Follow by Email